শাহানা হুদা | The Daily Star Bangla
  • শাহানা হুদা

  • mob killing

    মানুষ যদি সে না হয় মানুষ...

    সেদিন রাস্তায় যেতে যেতে দেখলাম চার পাঁচজন শিশু খেলাচ্ছলে একটি বিড়ালের গলায় দড়ি দিয়ে বনবন করে ঘুরাচ্ছে। ওরা আনন্দে হাসছে কিন্তু আমি দেখলাম বিড়ালটার চোখ ঠিকরে বেরিয়ে আসছে। অসহায় বিড়াল জানেও না কেনো ওকে এভাবে ঘুরানো হচ্ছে ? এই দৃশ্য দেখে আমার এত কষ্ট হলো যে বাচ্চাদের বললাম বাবারা ওকে ছেড়ে দাও। ও তো তোমাদের মতই একটা বাচ্চা। ওর মা ওর জন্য কাঁদছে।
  • কেমন সমাজ, ধর্ষকরা এতোটা শক্তিশালী কেনো?

    ধর্ষকদের বিচারের দাবিতে যখন স্কুলের বাচ্চারা রাজপথে দাঁড়িয়ে প্ল্যাকার্ড ধরে থাকে এবং সেই প্ল্যাকার্ডে লেখা থাকে ধর্ষকদের ফাঁসি চাই, তখন এই সমাজের একজন নাগরিক হিসেবে দম বন্ধ হয়ে আসে। আর একজন মা হিসেবে বুকটা মুচড়ে উঠে, মনে হয় সন্তানকে নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হয়েছি বলেই আজকে তাকে এরকম একটা প্ল্যাকার্ড হাতে রাজপথে দাঁড়াতে হচ্ছে। এই বাচ্চারা ধর্ষণ কী জানে না, অপরাধ কী জানে না, ফাঁসি কী তাও জানে না। এই বয়সে তাদের জানার কথাও নয়। তাদের এ পৃথিবীর সব সুন্দর সুন্দর পশুপাখি, অভয়ারণ্য, আবিষ্কার, গান-বাজনা, রূপকথা, আবিষ্কারের গল্প শুনবে, ছবি আঁকবে, স্বপ্ন দেখবে আকাশ ছোঁয়ার। অথচ ভাগ্যের কী নির্মম পরিহাস যে আজ তাদের রাস্তায় নেমে দাঁড়াতে হচ্ছে বন্ধুর মৃত্যুর বিচার দাবি করতে।
  • violence childern

    চোখের সামনে হলুদ জামা পরা সায়মার মুখ

    দিনে দিনে অসুস্থ হয়ে পড়ছি, তা না হলে কেন চোখ বন্ধ করলেই দেখতে পাই এটি শিশু ভয়ার্ত চোখে তাকিয়ে আছে--আর কতগুলো দানবীয় হাত তার দিকে এগিয়ে আসছে। কোনো শিশুর দিকে চোখ পড়লেই কেন মনে হচ্ছে এই বাচ্চাটি কি নিরাপদে থাকতে পারবে?
  • শুধু সুখ চলে যায়

    রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কবিতার মতো এরকম সুখ কি আর আছে আমাদের জীবনে? না নেই, থাকার কথাও না। কারণ এই সমাজ ক্রমশ আমাদের জীবনকে প্রতিযোগিতার মুখে দাঁড় করিয়ে দিচ্ছে। আর আমরা যত বেশি এই প্রতিযোগিতার মধ্যে ঢুকে যাচ্ছি, যত বেশি চাহিদা সৃষ্টি করছি, যত বেশি চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করছি--ততই আমাদের জীবন থেকে সুখ হারিয়ে যাচ্ছে।
  • Drive

    আমাদের জীবন ‘রাখে আল্লাহ মারে কে’

    ‘কুইনাইন জ্বর সারাবে বটে কিন্তু কুইনাইন সারাবে কে?’ বহু আগে পড়া উপন্যাসের এই কথাটি আমাদের জীবনে চরম সত্য হয়ে দেখা দিয়েছে। কারণ, খুব সম্প্রতি খবরে দেখতে পেলাম ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের তথ্য মতে রাজধানীর ৯৩ শতাংশ ফার্মেসিতে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রি করা হচ্ছে।
Top