এ কে এম জামীর উদ্দীন | The Daily Star Bangla
  • এ কে এম জামীর উদ্দীন

  • bangladesh_bank.jpg

    অর্থনৈতিক সংকট মোকাবিলায় করণীয় কী, করছি কী?

    মধ্যযুগীয় ভাবধারার অবসান ঘটিয়েছিল রেনেসাঁ। এর মাধ্যমে সৃষ্টি হয় আধুনিক পৃথিবীর। ওই রূপান্তরের পর থেকে কয়েকটি যুগ-সন্ধিক্ষণকে যদি বিবেচনা করা হয়, তাহলে গত শতাব্দীর নব্বই দশক ছিল অন্যতম। আমাদের চিন্তা-কাঠামোর আমূল পরিবর্তন এনেছিল এই কাল। আর এর নেপথ্যে ছিল কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি। কিন্তু এই সর্বাধুনিক প্রযুক্তিটিই নতুন শতাব্দীর গোঁড়ায় জন্ম দেয় অর্থনৈতিক সংকটের।
  • জর্জ ফ্লয়েড ও প্রশ্নবিদ্ধ সভ্যতা

    ভোর হতে আরও ঘণ্টাখানেক বাকি। সারারাত ঘুমাইনি। কিন্তু, শরীরে না ঘুমানোর অবসাদ নেই। একটু পর নায়াগ্রা জলপ্রপাত দেখব। অন্যরকম ভালো লাগার অস্থিরতা কাজ করছে। গত বছর অক্টোবরের শেষ সপ্তাহের কোনো এক রাতের শেষ প্রহরের কথা বলছি। নিউইয়র্ক শহর থেকে বাফেলোতে সবেমাত্র বাস থেকে নামলাম। অঞ্চলটি কানাডার একেবারে সীমান্তবর্তী। টার্মিনালের ভিতর অপেক্ষা করছিলাম, ভোর হওয়ার জন্য।
  • মন্দা মোকাবিলায় ‘অন্ধকারে ঢিল ছোড়া’ নীতিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক

    ঝামেলাটা তৈরি করেছেন রিসি সানক। দায়িত্ব পালন করছেন ব্রিটেনের অর্থমন্ত্রী হিসেবে। গত ১২ মে তিনি বলেন, মন্দা মোকাবিলার জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কাছ থেকে ব্রিটিশ সরকারের অধিক পরিমাণ ঋণ গ্রহণ স্বাভাবিক বিষয়। এখন তা নিয়ে দুশ্চিন্তা করার সময় নয়।
  • বাংলাদেশের অর্থনৈতিক মন্দা কাটানোর পরিকল্পনা কী?

    মন্দার আঘাতে আমরা এর মধ্যেই পর্যুদস্ত। যদি এই সঙ্কটকে যথাযথভাবে মোকাবিলা করতে না পারি, তাহলে দেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকে আমাদের যা অর্থনৈতিক অর্জন, সব উবে যেতে পারে।
  • মন্দা মোকাবিলায় কেন্দ্রীয় ব্যাংক কতটা প্রস্তুত?

    সময়টা শুক্রবার রাত। ২০০৮ সালের ১২ সেপ্টেম্বর। আমার এখনও সেইসব প্রহরগুলো স্পষ্ট মনে আছে। প্রচণ্ড অস্থিরতায় ভুগছি। ওই দিন অফিসে থাকার সময় বুঝতে পারছিলাম ভয়ঙ্কর কিছু হতে যাচ্ছে। কারণ, আমাদের প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম ব্যাপকভাবে কমেছে। সবকিছু বোঝার পরও আমার স্বপ্নের কর্মস্থল যে আর থাকবে না তা মানতে পারছিলাম না। নিজ অফিসের সর্বশেষ খবর জানার জন্য রাতভর গণমাধ্যমের খবরগুলোতে চোখ রাখছিলাম। সহকর্মীদের মোবাইল ফোনে ম্যাসেজ পাঠাচ্ছি, আমাদের ভবিষ্যৎ কি তা অনুধাবন করার জন্য। শনিবার ও রোববারের সাপ্তাহিক ছুটি শেষ হওয়ার পর অফিসে গিয়ে বুঝলাম, সব শেষ হয়ে গেছে।
Top