একুশ তাপাদার | The Daily Star Bangla
  • Ekush Tapader

    একুশ তাপাদার

    ক্রীড়া প্রতিবেদক, দ্য ডেইলি স্টার

  • অনেক প্রশ্ন উঠিয়ে অসহায় আত্মসমর্পণ

    ম্যাচটা প্রথম ইনিংসেই খুইয়ে বসেছিল বাংলাদেশ। এরপর দেখার ছিল কোনো লড়াই আসে কিনা, কেউ দেখাতে পারেন কিনা ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয়। না, বলার মতো তেমন কিছুই হয়নি। বরং ফের অনেকগুলো প্রশ্ন উঠিয়ে বাংলাদেশ ম্যাচটা হারল দুঃস্বপ্নের মতো। দেখাল টেস্ট ক্রিকেটে নিজেদের মলিন-রূঢ় বাস্তবতার আরেকটি ছবি।
  • india and bangladesh

    এই অ্যাপ্রোচ, এই মানসিকতায় এমনই তো হওয়ার কথা ছিল

    ‘পেসারদের তো একাদশে জায়গাটা অর্জন করে নিতে হবে’- আফগানিস্তানের বিপক্ষে পেসারবিহীন একাদশ নামিয়ে দেওয়ার পর প্রশ্নের মুখে এমনটাই বলছিলেন তখনকার অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। অতি স্পিন উইকেট বানিয়ে পেসার ছাড়া নেমে উপমহাদেশের দল আফগানিস্তানের সঙ্গে সেবার ধরা খেয়েছিল বাংলাদেশ। ভারতের বিপক্ষে ইন্দোর টেস্টে স্পোর্টিং উইকেটে আবু জায়েদ রাহি যখন বিরাট কোহলিদের কাবু করছিলেন এবং পরে সঙ্গ দেওয়ার কাউকে পাচ্ছিলেন না, মনে এলো সাকিবের সে কথা।
  • নতুন অধিনায়কের হাত ধরে নতুন শুরুর অপেক্ষা

    নতুন অধিনায়ক মুমিনুল হক সংবাদ সম্মেলনে কিছুটা যেন স্নায়ুচাপে। কোন প্রশ্নের কি উত্তর দেবেন ঠিক বুঝে উঠতে পারলেন না। মাঝেমাঝে তালও ছুটল। হুট করে পাওয়া অধিনায়কত্বের অপ্রস্তুত ভাবটা আড়াল করতে পারলেন না যেন। সামলে নিয়ে অবশ্য জোর গলাতেই জানালেন দল হিসেবে নেই প্রস্তুতির ঘাটতি। বরং টি-টোয়েন্টি সিরিজে প্রত্যাশা ছাপিয়ে এক ম্যাচ জেতার বিশ্বাস সঙ্গে আছে। আবার সুযোগ হাতছাড়া করার খচখচানিও যে আছে। সব হিসেব নিকেশ মিলিয়ে ভারতের বিপক্ষে ইন্দোর টেস্ট দিয়ে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু করতে যাওয়া বাংলাদেশ বাস্তবতার জমিনে দাঁড়িয়ে থাকবে সুযোগের অপেক্ষায়।
  • nagpur stadium

    নাগপুরে অস্বস্তির কাঁটা আর মন ভরানো বিদর্ভের মাঠ

    ভারত বিশাল দেশ। এক রাজ্য থেকে আরেক রাজ্যে গেলে বদলে যায় আবহাওয়া, বদলায় মানুষের ধরণ, ভাষা, সংস্কৃতি। ফারাক তৈরি হয় নিয়ম-কানুনের মধ্যেও। গুজরাটের রাজকোটে স্বস্তির চারদিন পেরিয়ে মহারাষ্ট্রের তৃতীয় বৃহত্তম শহর নাগপুরে এসে ফারাক যে আসলে কতটা তা টের পাওয়া গেল।
  • Rajkot

    উদার রাজকোটে নিবিড় চারদিন

    হিন্দুর ভারত, মুসলমানের ভারত, দলিতের ভারত। নানান জাত-পাত নির্বিশেষে সকলের ভারত। মহাত্মা গান্ধীর জীবন দর্শনে এই অসাম্প্রদায়িক চিন্তা ছিল প্রবল। বৈচিত্র্যময় সংস্কৃতি আর বহুধর্মের সম্মিলনে ভারতবর্ষের পরিচয়ও করানো হয় এভাবে। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে ভারত তথা উপমহাদেশের ছবি সেই পরিচয়ে আঘাত হানে প্রায়ই। বারবার খবরে বড় জায়গা দখল করে হিংসা-বিদ্বেষেরই চিত্র। গান্ধীর শৈশবের স্মৃতি ভরপুর রাজকোট শহরে দিন চারেকের অবস্থানে মিলল অবশ্য এক স্বস্তির আবহ। সাম্প্রদায়িক বিষ নয়, এখানে পাওয়া গেল সমন্বয়বাদের বহু প্রত্যাশিত জীবনধারা।
Top