সংগীতের এক বিষণ্ণ বছর | The Daily Star Bangla
০৪:৫১ অপরাহ্ন, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৯ / সর্বশেষ সংশোধিত: ০৬:২৫ অপরাহ্ন, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৯

সংগীতের এক বিষণ্ণ বছর

২০১৯ সাল সংগীতের জন্য ছিল হতাশার বছর, সংগীতাঙ্গন ক্রমাগত মন্দার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। কমে আসছে গান প্রকাশের সংখ্যা। ঈদ বা উৎসবে গান প্রকাশের সংখ্যা একেবারে কমে এসেছে। বর্তমানে শিল্পীদের অনেকেই নিজ উদ্যোগে ইউটিউবে তাদের গান প্রকাশ করেছেন। অডিও কোম্পানিগুলো গানের চেয়ে এখন নাটক প্রযোজনার দিকে ঝুঁকেছেন। আর যে গানগুলো তারা প্রকাশ করেছে তার বেশিরভাগই শখের শিল্পীদের। নিয়মিত শিল্পীদের গান তেমন একটা প্রকাশিত হয়নি।

প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গানের ওয়েলকাম টিউন থেকে তাদের আয় কমে শূন্যের কোঠায় নেমে এসেছে। ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশিত গানের ভিউ কমছে। যা বিরূপ প্রভাব ফেলেছে সংগীতাঙ্গনে। শিল্পীদের ব্যয়বহুল মিউজিক ভিডিও ইউটিউবে দেখছেন না দর্শকরা। তাই নতুন গানে বিনিয়োগ করছেন না প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানগুলো।

তারা আরও জানান, এ বছর গানে যা বিনিয়োগ হয়েছে সেটা উঠিয়ে আনা সম্ভব হয়নি। বছরের শুরু থেকে খারাপ অবস্থার সূত্রপাত হয়, যেটা এখনো কাটেনি। মিউজিক ইন্ডাস্ট্রি ওনার্স এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে চেষ্টা চলছে এ অবস্থা থেকে উত্তরণের।

২০১৯ সালে সংগীতে উল্লেখযোগ্য ঘটনার মধ্যে ১৮ সেপ্টেম্বর প্রয়াত ব্যন্ডতরাকা আইয়ুব বাচ্চুর স্মরণে চট্টগ্রামের প্রবর্তক মোড়ে স্থাপিত হয় প্রতীকী রূপালি গিটার।

কণ্ঠশিল্পী রুনা লায়লার সুরে আশা ভোঁসলে, হরিহরণ, রাহাত ফতেহ আলি খান, আদনান সামির গান নিয়ে ‘রুনা লায়লা ফিচারিং লিজেন্ডস ফরএভার’ অ্যালবাম প্রকাশ।

ব্যান্ড মাইলস ৪০ বছরপূর্তি উপলক্ষে ২০১৯ সালে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও অস্ট্রেলিয়ায় ২৮টি কনসার্টে অংশ নেয় মাইলস। যার শেষ কনসার্টটি ২৪ ডিসেম্বর ঢাকার বসুন্ধরা ইন্টারন্যাশনাল কনভোকেশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়েছে। একইদিনে ২৪ ডিসেম্বরে ২০ বছর পূতির উৎসব করে আর্টসেল।

কলকাতার জি বাংলার গান বিষয়ক রিয়েলিটি শো ‘সা রে গা মা পা’র মাধ্যমে জনপ্রিয়তা অর্জন করেন বাংলাদেশের মাঈনুল আহসান নোবেল। সেখানে দ্বিতীয় রানারআপ হয়েছেন তিনি। জেমস ও আইয়ুব বাচ্চুসহ অন্যশিল্পীদের গানগুলো গেয়ে তুমুল শ্রোতাপ্রিয়তা লাভ করেন কিন্তু তারপর আর তাকে গানে পাওয়া যায়নি। ‘যদি একদিন’ সিনেমার মাধ্যমে নায়ক হিসেবে প্রথম অভিষেক হয় কণ্ঠশিল্পী তাহসান এবং ‘গহিনের গান’ মাধ্যমে আসিফ আকবরের।

২০১৯ সালে ইউটিউবে বেশি ভিউ হওয়া গানের তালিকায় রয়েছে- সুকুমার বাউলের ‘বলবোনা গো,’ ইমরানের ‘আমার কাছে তুমি অন্যরকম’, শামস ভাইয়ের ‘ঘুম ভালোবাসি’, জিশান খান শুভর ‘ভুলিনি তোমায়’, লায়লার ‘সখী গো আমার মন ভালো না,’ কাজী শুভর ‘ভুলিয়া না যাইও’ গানগুলি। এছাড়া অসংখ্য টিকটক হওয়া গানের মধ্যে পলিনের গাওয়া ‘রঙ’ তালিকায় রয়েছে। 

চলচ্চিত্রের আলোচিত গানের তালিকায় ছিল- ‘যদি একদিন’ ছবির হৃদয় খানের গাওয়া ‘লক্ষ্মী সোনা’, ‘পাসওর্য়াড’ ছবিতে অশোক সিং এর কণ্ঠে ‘পাগল মন, কোনালের কণ্ঠে ‘আগুন লাগাইলো,’ ‘নোলক’ ছবির আসিফ আকবরের গাওয়া ‘শীতল পাটি,’ ফাগুন হাওয়ায়’ ছবির পিন্টু ঘোষ ও সুকন্যার গাওয়া ‘তোমাকেই চাই,’ ‘অবতার’ ছবির ঐশীর কণ্ঠে ‘রঙিলা বেবি, ‘বিশ্বসুন্দরী’ ছবির ইমরান ও কণার গাওয়া  ‘তুই কি আমার হবি রে’ গানগুলি শ্রোতারা পছন্দ করেছেন।

প্রশংসিত গানের তালিকায় রয়েছে কুমার বিশ্বজিতের গাওয়া ‘রস কইয়া বিষ খাওয়াইলা’, আসিফ আকবরের ‘বাবা’, ‘দেবদাস’, মিনারের ‘আয়না’, ‘তুমি তোমার মতো’, তাহসানের ‘হঠাৎ’, হাবিব ওয়াহিদের ‘মন তুই,’ তানজীব সারোয়ারের ‘তোরেছাড়া’, ঐশীর ‘ষ্টেশন-২ গানগুলো।

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top