ব্র্যান্ড ভ্যালুর দৌড়ে এগিয়ে বিরাট-দীপিকা, পেছনে অমিতাভ-শচীন | The Daily Star Bangla
০১:৫৮ অপরাহ্ন, জানুয়ারী ১৩, ২০১৯ / সর্বশেষ সংশোধিত: ০২:০১ অপরাহ্ন, জানুয়ারী ১৩, ২০১৯

ব্র্যান্ড ভ্যালুর দৌড়ে এগিয়ে বিরাট-দীপিকা, পেছনে অমিতাভ-শচীন

তারকাদের ব্যবহার করে কোটি কোটি টাকার বিজ্ঞাপন নির্মাণ করা হয় ভারতে। ঠিক কতো টাকার বিজ্ঞাপন তৈরি করা হয় দেশটিতে তার সঠিক পরিসংখ্যান না পেলেও মনে করা হয় পরিমাণটি কমবেশি ৫ হাজার কোটি রুপির কম নয়।

ভারতের নিজস্ব প্রতিষ্ঠান ছাড়াও বিশ্ব-নন্দিত ব্র্যান্ডের বিজ্ঞাপনে ভারতীয় অভিনেতা-অভিনেত্রী, ক্রিকেটার কিংবা তারকাদের ব্যবহার করা হয়। তাদের কাউকে বছরের জন্য, কাউকে শুধু একটি বিজ্ঞাপনের জন্য আবার কাউকে সারাবছর ওই পণ্যের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে নিযুক্ত রাখা হয়।

শুধু পণ্যের নয়, এখন ভারতের বেশ কয়েকজন তারকা, অভিনেতা-অভিনেত্রী এবং ক্রিকেটার রয়েছেন যারা দেশটির বিভিন্ন রাজ্যের ব্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবেও নিযুক্ত এবং এর জন্য তাদের মোটা অঙ্কের অর্থ দেওয়া হয়। যেমন, পশ্চিমবঙ্গের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর শাহরুখ খান। একসময় গুজরাটের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন অমিতাভ বচ্চন।

ভারতে কেন্দ্রীয়ভাবে অভিনেতা-অভিনেত্রী কিংবা তারকারা যেমন ব্র্যান্ড বিপণনের কাজে নিয়োগ পান তেমনই স্থানীয়ভাবে বিভিন্ন রাজ্যের অভিনেতা-অভিনেত্রীরাও ব্র্যান্ড বিপণনের জন্য নিযুক্ত থাকেন। আর ব্র্যান্ড বিপণনের ওপর নির্ভর করে সেই তারকাদের বাৎসরিক আয়-রোজগার। সম্প্রতি, ভারতীয় গণমাধ্যমে এই ব্র্যান্ড ভ্যালু নিয়ে একটি সমীক্ষায় চমকে দেওয়ার মতো তথ্য উঠে এসেছে।

ওই সমীক্ষা বলছে, বিজ্ঞাপনের বাজারে এই মুহূর্তে সবচেয়ে দামি মুখ ২২ গজের বিরাট। অর্থাৎ বিরাট কোহলি। এরপর রয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোন।

বিরাট-দীপিকা বলিউডের দুই বাদশা অমিতাভ বচ্চন এবং শাহরুখ খানকেও পেছনে ফেলে দিয়েছেন। আর তা নিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যমে চলছে তুমুল আলোচনা-চর্চা।

ডাফ অ্যান্ড ফেল্পস নামের একটি সংস্থা সম্প্রতি এক সমীক্ষায় বলেছে, বিরাট কোহলি এই মুহূর্তে তার নিজের ব্র্যান্ড ভ্যালু তৈরি করেছেন প্রায় ১৭০.৯ মিলিয়ন ডলার- ভারতীয় মুদ্রায় যার পরিমাণ ১ হাজার ২০৫ কোটি রুপি।

সমীক্ষক সংস্থাটির ভাষ্য- এফএমসিজি, স্মার্টফোন, ই-কামার্স এবং রিটেল মার্কেটের বিজ্ঞাপনের ক্যাটাগরির বিচারে তরুণ প্রজন্মের কাছে এই মুহূর্তে বেশ জনপ্রিয় দীপিকা পাড়ুকোন। সংস্থাটি বিরাটের পর দ্বিতীয়স্থান দিতে চাইছে তাকে। তার ব্র্যান্ড ভ্যালু হিসাব করে বলা হচ্ছে ১০২ মিলিয়ন ডলার- যা ভারতের মুদ্রায় দাঁড়ায় ৭২৩ কোটি রুপি।

তবে অধিকতর সিনিয়রদের মধ্যে নিজের জায়গা কিছুটা হলেও অক্ষুণ্ণ রেখেছেন অক্ষয় কুমার। সমীক্ষায় বলা হচ্ছে, তৃতীয়স্থানে রয়েছেন এই ‘খিলাড়ি’ যাকে নতুন করে অনেকেই ‘প্যাডম্যান’ হিসেবে চেনেন। সেই অক্ষয় কুমারের নিজের ব্র্যান্ড ভ্যালু দাঁড়িয়েছে ৬৭.৩ মিলিয়ন ডলারে- ভারতীয় মুদ্রায় যার পরিমাণ ৪৪৭ কোটি রুপি।

তালিকায় স্ত্রী নম্বর টু থাকবেন আর স্বামী সেই টিমে থাকবেন না, তা কী হয়! দীপিকার বর অভিনেতা রণবীর সিং তালিকায় রয়েছেন চতুর্থস্থানে। তার ব্র্যান্ড ভ্যালু হিসাব করে সমীক্ষক বলছে ৪৪৫ কোটি রুপি।

বহু বছর একটানা খ্যাতির হিমালয়ের চূড়ায় থাকা সুপারস্টার শাহরুখ খানের সময়টা খুব ভালো যাচ্ছে না। স্বাভাবিকভাবেই অন স্ক্রিনে ফল ভালো না হওয়ায় তার অফ স্ক্রিনের বাণিজ্যে ভাটা পড়েছে। যেমন, শাহরুখ খানের ব্র্যান্ড ভ্যালু এখন ৬০.৭ মিলিয়ন ডলার- ভারতীয় মুদ্রায় এর পরিমাণ দাঁড়ায় ৪২৮ কোটি রুপি।

সাল্লু মিয়াও টপ টেনে রয়েছেন, তবে শীর্ষে তিনে নেই তার নাম। যদিও শাহরুখ খানের চেয়ে ছবির সফলতার বিচারে এগিয়ে রয়েছেন সালমান খান। তবুও অনেক সময় বিধিবাম হয়ে যায়। এমনটিই হয়েছে সাল্লু মিয়ার ক্ষেত্রে। ব্র্যান্ড ভ্যালুর নিরিখে ষষ্ঠস্থানে রয়েছেন তিনি। প্রায় ৫৫.৮ মিলিয়ন ডলারের ব্র্যান্ড ভ্যালু নিয়ে তিনি শাহরুখের ঘাড়ের ওপর নিশ্বাস ফেলছেন।

বিগ বি বললে সাদা ফ্রেন্সকাট দাঁড়ি, ডিপ ব্ল্যাক ফ্রেমের চশমা এবং ভারী গলার এক সুপুরুষের দৃশ্য আমাদের চোখের সামনে ভেসে উঠবে। তিনি তো সুপারস্টার অমিতাভ বচ্চনই হবেন, তাই নয় কী? তবে ব্র্যান্ড ভ্যালুর বিচারে অমিতাভের সিরিয়াল কিন্তু সপ্তমে। প্রায় ৪১.২ মিলিয়ন ডলারের ব্র্যান্ড ভ্যালু তার- যা ভারতীয় মুদ্রায় দাঁড়ায় ২৯০ কোটি রুপি।

খুব ছোট্ট মেয়ে, বড়পর্দা কাঁপানো অভিনয়- কখনো সহজসরল আবার কখনো কঠিন বাস্তবের মুখোমুখি চরিত্রে অভিনয়ের দক্ষতায় ইতিমধ্যেই বলিউডের তাবড়-তাবড় অভিনেতা-অভিনেত্রীর কাতারে দাঁড়িয়েছেন এই অভিনেত্রী। হ্যাঁ, সেই মেয়েটির নাম আলিয়া ভাট। মহেশ ভাট-কন্যা, পূজা ভাটের বোন- এসব পরিচয় অনেক আগেই ছাপিয়ে নিজের ব্র্যান্ড ভ্যালু তৈরি করেছেন আলিয়া। যার মূল্য এখন ৩৬.৫ মিলিয়ন ডলার- অর্থাৎ ২৫৮ কোটি রুপি। শীর্ষ দশের মধ্যে অষ্টমস্থানে রয়েছেন মাত্র ২৫ বছরের এই অভিনেত্রী।

ব্র্যান্ড ভ্যালুর হিসাবে ৩১.৬ মিলিয়ন ডলারের অবস্থান নিয়ে নবমস্থানে বরুণ ধাওয়ান এবং দশমস্থানে রয়েছেন হৃতিক রোশন- যার ব্যান্ড ভ্যালু ৩১ মিলিয়ন ডলার অর্থাৎ ভারতের রুপিতে ২১৯ কোটি।

এছাড়াও আমির খানের স্থান একাদশে রয়েছে ২০১ কোটির হিসাবে, তালিকায় দ্বাদশে রয়েছেন মাস্টার ব্লাস্টার শচীন টেন্ডুলকার- যার ব্র্যান্ড ভ্যালু ১৫৪ কোটি রুপি।

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top