যতোটুকু স্পেস পাবো, তার সর্বোচ্চ ব্যবহার আমরা করবো: রুমিন ফারহানা | The Daily Star Bangla
০৪:৩৪ অপরাহ্ন, মে ২০, ২০১৯ / সর্বশেষ সংশোধিত: ০৫:৫৬ অপরাহ্ন, মে ২০, ২০১৯

যতোটুকু স্পেস পাবো, তার সর্বোচ্চ ব্যবহার আমরা করবো: রুমিন ফারহানা

একাদশ জাতীয় সংসদে বিএনপির জন্যে নির্ধারিত একটি সংরক্ষিত নারী আসনে দলের হয়ে আজ (২০ মে) মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা। ফরম জমা দেওয়ার পর দ্য ডেইলি স্টার অনলাইনের সঙ্গে কথা বলেন ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা।

জাতীয় সংসদে আপনার ভূমিকা কী থাকবে?- এমন প্রশ্নের উত্তরে বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সহকারী সম্পাদক রুমিন ফারহানা বলেন, “প্রথমেই যে বিষয়টি নিয়ে আমি আলোকপাত করতে চাই তা হলো: দেশনেত্রী ও তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী, গণতন্ত্রের আরেক নাম আপোষহীন নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার হয়ে আজ এক বছরের বেশি সময় কারাগারে রয়েছেন। এটি আমি সংসদে তুলে ধরবো।”

“বেগম জিয়ার মামলার আইনগত দিকগুলো পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, মামলার মেরিট, উনার বয়স, সামাজিক অবস্থান ও জেন্ডার- সবকিছু মিলিয়ে বাংলাদেশের আইন অনুযায়ী উনি তৎক্ষণাৎ জামিন পাওয়ার যোগ্য। কিন্তু, তাকে জামিন দেওয়া হচ্ছে না।”

“এছাড়াও, আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের দেশে আসার জন্যে অনুকূল পরিবেশ তৈরি করা, বাংলাদেশের মানুষের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দেওয়া, গণতন্ত্র ফিরিয়ে দেওয়া, দেশের মানুষ যে কথা বলতে ভয় পায়, লিখতে ভয় পায়- এক ধরনের চাপা দমবদ্ধকর অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে- সে বিষয়গুলো নিয়ে আমি সংসদে কথা বলবো।”

“শুধু তাই নয়- এখন যে ভীষণ রকমের দুর্নীতি হচ্ছে- মেগা প্রকল্পের নামে যে মেগা দুর্নীতি চলছে সেগুলো নিয়ে কথা বলবো। গ্যাস-বিদ্যুৎ ও সর্বোপরি যে নারীর ওপর সহিংসতা যেটি বিপদজনক মাত্রায় বেড়েছে- সেই বিষয়গুলো নিয়ে আমি কথা বলবো।”

এ বিষয়গুলো নিয়ে কী আপনার দলের সঙ্গে কথা হয়েছে?- “এগুলোতো জাতীয় সঙ্কট। এগুলো নিয়ে আমরা সবসময়ই কথা বলছি। এখন যেহেতু কথা বলার নতুন একটা জায়গা সৃষ্টি হয়েছে- তথা জাতীয় সংসদ- সেখানে আমরা এ বিষয়গুলো নিয়ে আলাপ করবো।”

সেখানে দলের এজেন্ডা হিসেবে কী কী থাকতে পারে?- “সেখানে দলের এজেন্ডা হিসেবে থাকবে আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, থাকবে তারেক রহমানের দেশে ফেরার মতো অবস্থা তৈরি করা, গণতন্ত্র ও মানুষের ভোটাধিকারের ব্যাপারে কথা বলা।”

আপনি কথা বলতে পারবেন বলে মনে করেন?- “এটা তো একটা বিনা ভোটে নির্বাচিত সংসদ। তা ছাড়াও বাংলাদেশের সংবিধান অনুযায়ী সংসদে ১৪৯টি আসনে জয় লাভ করলেও কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্ভব নয় যতোক্ষণ না পর্যন্ত একটি দল ১৫১টি আসন পাচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে যতোটুকু স্পেস পাবো, তার সর্বোচ্চ ব্যবহার আমরা করবো।”

আপনি বলছেন বিনা ভোটে নির্বাচিত সংসদ। তাহলে এমন একটি সংসদে যাওয়া ব্যাপারে আপনার আগ্রহ কেনো হলো?- “প্রথমত, এটি আমার আগ্রহের বিষয় নয়; এটি দলীয় সিদ্ধান্ত। দ্বিতীয়ত, আমার দল খুব স্পষ্ট করে বলেছে যে, সংসদে যাওয়া মানে সংসদকে বৈধতা দেওয়া নয়। আমাদেরকে যেহেতু সভা-সমিতি, মিছিল- কিছু করতে দেওয়া হচ্ছে না সেক্ষেত্রে সংসদ একটি অ্যাভিনিউ হিসেবে কাজ করবে। এবং সেই অ্যাভিনিউতে আমাদের যেটুকু ভূমিকা রাখার তা রাখবো।”

আরও পড়ুন:

সংরক্ষিত নারী আসনে বিএনপির প্রার্থী রুমিন ফারহানা

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top