বিএনপি নেতাদের মুখে দুর্নীতির কথা আর ‘ভুতের মুখে রাম নাম’ একই জিনিস: কাদের | The Daily Star Bangla
০৫:০৯ অপরাহ্ন, জুন ০২, ২০১৯ / সর্বশেষ সংশোধিত: ০৫:১৩ অপরাহ্ন, জুন ০২, ২০১৯

বিএনপি নেতাদের মুখে দুর্নীতির কথা আর ‘ভুতের মুখে রাম নাম’ একই জিনিস: কাদের

স্টার অনলাইন রিপোর্ট

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি নেতাদের মুখে সরকারের দুর্নীতির কথা আর ‘ভূতের মুখে রাম নাম’ একই জিনিস। তিনি বলেন, যে দল ক্ষমতায় থাকাকালীন সময় দেশ তিনবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে, যাদের চেয়ারপারসন দুর্নীতির অভিযোগে কারাবাস করছেন তারা কিভাবে সরকারের সমালোচনা করতে পারে?

আজ রোববার দুপুরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মেঘনা টোল প্লাজা এলাকায় হাইওয়ে পুলিশ কমান্ড ও মনিটরিং সেন্টার উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতির ফলে ইতিহাসের সবচেয়ে আরামদায়ক ও স্বস্তির ঈদযাত্রা হচ্ছে এবার। যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের ফলে ঢাকা থেকে দেড় ঘণ্টায় কুমিল্লা এবং চার ঘণ্টায় চট্টগ্রামে যানবাহন পৌঁছে যাচ্ছে। গাজীপুর থেকে টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ মহাসড়ক চারলেনে উন্নীত হওয়ায় উত্তরের জনপদেও যাতায়াতের দুর্ভোগের অবসান হয়েছে। সড়ক-মহাসড়কের জন্য বাংলাদেশের কোথাও কোনও যানজট হচ্ছে না।

হাইওয়ে পুলিশের ডিআইজি আতিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি মো. হাবিবুর রহমান, সড়ক ও জনপথ বিভাগের ঢাকা বিভাগীয় অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী আব্দুস সবুর খান, মুন্সীগঞ্জের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম, নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ ও হাইওয়ে পুলিশের পুলিশ সুপার সফিকুল ইসলাম, গজারিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম, ভাইস চেয়ারম্যান নেকি খোকনসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী বলেন, “হাইওয়ে পুলিশের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল মহাসড়কগুলোতে মনিটরিং ও বিশ্রামের জন্য সেন্টার নির্মাণ করার। সেই প্রতীক্ষিত হাইওয়ে পুলিশের কমান্ড অ্যান্ড মনিটরিং কন্ট্রোল সেন্টার নির্মিত হয়েছে মেঘনা টোল প্লাজায়। পুলিশ এখান থেকে মহাসড়কের যানজটসহ সার্বিক পরিস্থিতি মনিটরিং করতে পারবে। পর্যায়ক্রমে দেশের সব মহাসড়কে হাইওয়ে পুলিশের জন্য মনিটরিং অ্যান্ড কমান্ড ভবন নির্মাণ করা হবে।”

সড়ক মন্ত্রী বলেন, মহাসড়কের যানবাহনের চালকদের বিশ্রামের জন্য বিশ্রামাগার নির্মাণ করা হবে। তিনি এজন্য মালিক-শ্রমিক নেতাদের মহাসড়কের পাশে জায়গা নির্বাচন করার আহ্বান জানান।

জঙ্গি হামলার শঙ্কা প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, “জঙ্গিবাদ বৈশ্বিক সমস্যা। হলি আর্টিজানের ঘটনার পর জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় আমরা সক্ষমতা অর্জন করেছি। আসন্ন ঈদের জামাতকে কেন্দ্র করে জঙ্গি হামলার আশঙ্কা উড়িয়ে দেওয়া যায় না। তবে আমাদের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তা মোকাবিলা করার জন্য তৎপর রয়েছে।”

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, নরেন্দ্র মোদি আবার ক্ষমতায় আসায় আগের চেয়ে বেশি শক্তি নিয়ে কাজ করতে পারবেন তিনি। তার এই মেয়াদেই তিস্তাসহ অভিন্ন সব নদীর পানি বণ্টন ও বাকী সমস্যাগুলোর সমাধান হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

ঈদ যাত্রা ভোগান্তিমুক্ত হবে আশা করে মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক দিয়ে গড়ে প্রায় প্রতিদিন চল্লিশ হাজার গাড়ি চলাচলের পরও যানজট সৃষ্টি হচ্ছে না। আর হবার সম্ভাবনাও নেই। তিনি বলেন, চার লেন সেতুর সুফল পাচ্ছে দেশবাসী।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মেঘনা টোল প্লাজা এলাকায় রোববার দুপুরে হাইওয়ে পুলিশ কমান্ড ও মনিটরিং সেন্টার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ওবায়দুল কাদের। ছবি: স্টার

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top