বাংলাদেশে অবনতিশীল উদার গণতন্ত্র | The Daily Star Bangla
০৬:০৫ অপরাহ্ন, মার্চ ১৩, ২০২১ / সর্বশেষ সংশোধিত: ০৬:১৬ অপরাহ্ন, মার্চ ১৩, ২০২১

বাংলাদেশে অবনতিশীল উদার গণতন্ত্র

নিজস্ব প্রতিবেদক

গত এক দশকে বাংলাদেশের উদার গণতন্ত্র পরিস্থিতির লক্ষণীয়ভাবে অবনতি হয়েছে।

ভ্যারাইটিস ডেমোক্রেসি (ভি-ডেম) ইনস্টিটিউটের গণতন্ত্র প্রতিবেদন-২০২১ অনুসারে, উদারনৈতিক গণতন্ত্র ইনডেক্সে (এলডিআই) বিশ্বের ১৭৯টি দেশের মধ্যে শূন্য দশমিক এক স্কোর নিয়ে বাংলাদেশের অবস্থান ১৫৪তম।

শূন্য দশমিক ৮৮ স্কোর নিয়ে এই সূচকে প্রথম স্থানে আছে ডেনমার্ক। 'স্বৈরাচারীকরণ ভাইরাল হচ্ছে’ শিরোনামে পঞ্চমবারের মতো দেয়া এই বার্ষিক প্রতিবেদনে বাংলাদেশের বর্তমান শাসনব্যবস্থাকে 'নির্বাচিত একনায়কতন্ত্র' বিভাগে রাখা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘হংকংসহ, বাংলাদেশ, হাঙ্গেরি, ফিলিপাইন, তানজানিয়ার মতো জনবহুল দেশগুলো একনায়কতান্ত্রিক গ্রুপে অন্তর্ভুক্ত।’

এর মধ্যে বিশ্বের নানা প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা কয়েকটি বড় ও প্রভাবশালী দেশও আছে, যার কারণে বিষয়টি সত্যিকার অর্থে বৈশ্বিক প্রবণতা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে 'এলডিআইতে যেসব দেশের লক্ষণীয় পতন হয়েছে তার মধ্যে অন্ততপক্ষে ১৫টি দেশে 'নির্বাচিত একনায়কতন্ত্র' চলমান।'

২০১০ থেকে ২০২০ সালের মধ্যে গণতন্ত্রের অবস্থার তুলনা করে দেয়া এই প্রতিবেদনে বাংলাদেশকে 'ক্রমশ স্বৈরতান্ত্রিক হচ্ছে' এমন হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে।

ভিন্ন ভিন্ন প্রেক্ষাপটেও স্বৈরতন্ত্র সাধারণত একই ধারাতেই চলে। ভি-ডেম ইনস্টিটিউট বলছে, ক্ষমতাসীন সরকার প্রথমে গণমাধ্যম এবং নাগরিক সমাজকে আক্রমণ করে, মিথ্যা তথ্য ছড়িয়ে এবং বিরোধীদের অসম্মান করে সমাজকে মেরুকরণ করে এবং তারপর নির্বাচনকে নষ্ট করে।

বিশ্বব্যাপী, বিশেষ করে, এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল, মধ্য এশিয়া, পূর্ব ইউরোপ ও ল্যাটিন আমেরিকা জুড়ে গত এক দশক ধরে গণতন্ত্রের এই পতন চলছে, যা ২০২০ সালেও অব্যাহত ছিল।

স্বৈরাচারীকরণের ক্ষেত্রে প্রতিবেশী দেশ ভারত, পাকিস্তান, নেপাল ও শ্রীলঙ্কাকে নিয়ে তৈরি তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান চতুর্থ।

ভি-ডেমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, বিশ্বের বৃহত্তম গণতন্ত্রের প্রতিনিধিত্বকারী দেশ ভারত ‘নির্বাচিত একনায়কতন্ত্রের’ দেশে পরিণত হয়েছে এবং প্রতিবেশীদের মধ্যে দেশটির অবস্থান প্রথম।

এতে বলা হয়েছে, মত প্রকাশের স্বাধীনতা ও গণমাধ্যমের প্রতি হুমকি আরও বাড়ছে। এই পরিস্থিতি ৩২টি দেশে আরও খারাপ হচ্ছে, তিন বছর আগেও এমন পরিস্থিতি ছিল ১৯টি দেশে।

ভি-ডেম বলছে, গত ১০ বছরে ৫০টি দেশের তথ্য বিশ্লেষণে দেখা গেছে নাগরিক সমাজের ওপর দমনপীড়ন ক্রমেই বাড়ছে।

১৭৮৯ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত ২০২টি দেশের ডেটাসেটের ওপর ভিত্তি করে ভি-ডেমের প্রতিবেদন তৈরি করা হয়। সাড়ে তিন হাজারেরও বেশি বিশেষজ্ঞদের সমন্বয়ে ভি-ডেম গণতন্ত্রের বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য পরিমাপ করে।

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top