পাড়ার দোকানের আলোচনা থেকে যেভাবে উদ্ধার হলো চুরি যাওয়া নবজাতক | The Daily Star Bangla
১০:৪৩ অপরাহ্ন, জানুয়ারি ২৩, ২০২১ / সর্বশেষ সংশোধিত: ১২:৪৪ অপরাহ্ন, জানুয়ারি ২৪, ২০২১

পাড়ার দোকানের আলোচনা থেকে যেভাবে উদ্ধার হলো চুরি যাওয়া নবজাতক

শনিবার সকালে অফিসে যাওয়ার পথে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের (আরএমপি) কনস্টেবল মাহফিজুর রহমান এমন একটি অদ্ভুত কথা শুনতে পান যার সূত্র ধরে শেষ পর্যন্ত চুরি যাওয়া এক নবজাতককে তার মায়ের কোলে ফিরিয়ে দেওয়া সম্ভব হয়েছে।

অফিসের উদ্দেশে রওনা হবার আগে বাড়ি থেকে বের হয়ে পাশের একটি দোকানের সামনে দাঁড়িয়েছিলেন রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) গোয়েন্দা শাখার কনস্টেবল মাহফিজুর রহমান। সেখানে দাঁড়িয়ে একটা ঘটনার কথা তার কানে আসে। লোকজন বলাবলি করছিল, পাশের রানীনগর বস্তিতে এক একজন সদ্য কন্যা সন্তানের মা হয়েছেন অথচ কেউ তাকে অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় দেখেনি। বাসায় বাচ্চা নিয়ে এসে তিনি প্রচার করেছেন গত রাতে বাড়ি ফিরবার সময় রাস্তায় তিনি সন্তান প্রসব করেছেন।

লোকজনের এই কানাকানিই কৌতূহলী করে তোলে কনস্টেবল মাহফিজুর রহমানকে। তিনি দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘লোকজনের এই কথাবার্তা আমার কৌতূহল তৈরি করে। সিদ্ধান্ত নেই, অফিসে যাওয়ার আগেই বস্তিতে গিয়ে ঘটনাটি খতিয়ে দেখব।’

তিনি বস্তিতে গিয়ে দেখেন মো. সজীব (২৫) ও মৌসুমী বেগম (২৩) দম্পতির ঘরে সত্যি এক নবজাতক এসেছে। তারা শিশুটির যেভাবে যত্ন নিচ্ছিল তাতে সন্দেহের কোনো অবকাশ ছিল না যে এটা তাদের সন্তান।

মাহফিজুর স্থানীয়দের কাছ থেকে জানতে পারেন, আট বছর আগে এই দম্পতির বিয়ের হলেও তারা ছিলেন নিঃসন্তান। অথচ মাত্র একদিন আগে তারা এই নবজাতকের কথা প্রথম জানতে পারেন।

মাহফিজুর বলেন, ‘আমি অফিসে গিয়ে পুরো ঘটনাটি আমার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানাই।’

আরএমপির ডিবি উপকমিশনার আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, মাহফিজুরের কাছে ঘটনাটা শুনেই গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের মধ্যে চাঞ্চল্য তৈরি হয়। কারণ, মাত্র একদিন আগেই রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে নবজাতক চুরির অভিযোগ পেয়েছিলে তারা। সঙ্গে সঙ্গে এএসপি রকিবুল ইসলামের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের অপারেশন টিম গঠন করে ঘটনাটি তদন্তে পাঠানো হয়।

দলটি বস্তিতে গিয়ে দেখেন যে মৌসুমীর চেহারা হাসপাতালের সিসিটিভি ফুটেজের চোরের সঙ্গে মিলছে। ফুটেজে দেখা যায় শুক্রবার সকালে শিশুটিকে নিয়ে তিনি হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে যাচ্ছেন। সঙ্গে সঙ্গে তারা শিশুটিকে উদ্ধার করে সজীব ও মৌসুমীকে গ্রেপ্তার করেন।

অভিযোগের সূত্রে জানা যায়, গত বুধবার সকালে শহরের বাগানপাড়া এলাকার মাসুম রবি দাসের স্ত্রী শিল্পী রানী দাস রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। দুদিন পর শুক্রবার সকালে, মৌসুমী হাসপাতালে শিল্পীর কাজে সহযোগিতার ছলে সখ্যতা গড়ে তোলেন। পরে সুযোগ বুঝে শিশুটিকে বাড়িতে নিয়ে যান।

এই ঘটনায় মাসুম রবি দাস রাজপাড়া থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।

ডিবির ডিসি আবদুল্লাহ আল মামুন গতকাল বিকেলে ডিবি অফিসে ঘটনার বর্ণনা করতে গিয়ে বলেছিলেন, ‘কিছুটা সৌভাগ্য এবং পুলিশের তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় উদ্ধারকাজ সফল হয়েছে।’

হাসপাতালটির উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌসের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, অনেক সময় অপরাধীরা কড়া নজরদারিও এড়িয়ে যায়। আমাদের চেষ্টার পরও ঘটনাটি ঘটেছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীগুলোকে সতর্ক করা হয়েছে।

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top