নোয়াখালীতে আরও ৭৭ জনের করোনা শনাক্ত | The Daily Star Bangla
০৪:১১ অপরাহ্ন, মে ২৩, ২০২০ / সর্বশেষ সংশোধিত: ০৪:১৪ অপরাহ্ন, মে ২৩, ২০২০

নোয়াখালীতে আরও ৭৭ জনের করোনা শনাক্ত

নিজস্ব সংবাদদাতা, নোয়াখালী

নোয়াখালীতে গত ২৪ ঘণ্টায় উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা, ইউপি চেয়ারম্যান, পুলিশ, স্বাস্থ্য-পরিচ্ছন্নকর্মী ও গুদামরক্ষকসহ আরও ৭৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় এ পর্যন্ত ৩৫০ জন করোনা রোগী শনাক্ত হলো।

জেলা সিভিল সার্জন ডা. মো. মমিনুর রহমান আজ শনিবার দুপুরে দ্য ডেইলি স্টারকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নতুন শনাক্তদের মধ্যে বেগমগঞ্জে ৪২ জন, কবিরহাটে ১৬ জন, সদরে চার জন, সুবর্ণচরে তিন জন, সোনাইমুড়ীতে তিন জন, চাটখিলে পাঁচ জন, সেনবাগ উপজেলায় চার জন রয়েছে বলে জানান সিভিল সার্জন।

বেগমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. অসীম কুমার দাস জানান, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক স্বাস্থ্যকর্মী ও পাঁচ পুলিশ সদস্যসহ উপজেলায় ৪২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তদের বেশিরভাগই চৌমুহনী বাজার এলাকার, বাকিরা ঢাকাফেরত। আক্রান্তদের শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল থাকায় নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে রয়েছেন। এ নিয়ে বেগমগঞ্জ উপজেলায় করোনা শনাক্ত হলো ১৭৮ জনের।

কবিরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. বিদ্যুৎ কুমার মজুমদার জানান, ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে কবিরহাটে আরও ১৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্ত ১৬ জনের মধ্যে নরোত্তমপুর ইউনিয়নে ১০, ঘোষবাগে দুই, ধানশালিকে দুই, সুন্দলপুরে এক ও বাটইয়া ইউনিয়নে একজন রোগী রয়েছে। এদের মধ্যে সিভিল সার্জন কার্যালয়ের একজন স্টাফ ও ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একজন কমিউনিটি হেলথ প্রোভাইডার রয়েছেন। আক্রান্তদের বাড়ী লকডাউন করে তাদের আইসোলেশনের ব্যবস্থা করা হবে এবং তাদের সংস্পর্শে যারা এসেছেন তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হবে।

সোনাইমুড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ডা. মো. রিয়াজ উদ্দিন জানান, সোনাইমুড়ীতে চার জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে এবং তারা সবাই ঢাকাফেরত।

সেনবাগ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মতিউর রহমান জানান, উপজেলার কাবিলপুর ইউনিয়নের চার ব্যবসায়ীর করোনা শনাক্ত হয়েছে। তারা সবাই সেনবাগ বাজারের ব্যবসায়ী। এদের মধ্যে এক দোকানের তিন জন ও এক তরকারি ব্যবসায়ী রয়েছেন। তারা সবাই হোম আইসোলেশনে আছেন। এ ঘটনায় শনাক্তদের বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে।

চাটখিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের করোনা ফোকাল পার্সন ডা. মো. তামজিদ হোসাইন জানান, ২৪ ঘণ্টায় উপজেলায় পাঁচ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে দুজন হাসপাতালের পরিচ্ছন্নকর্মী, একজন গুদাম রক্ষক, একজন উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ও একজন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রয়েছেন। শনাক্তদের বাড়ি লকডাউন করে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া সদর উপজেলায় চার জন ও সুবর্ণচর উপজেলায় তিন জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র জানায়, জেলায় এ পর্যন্ত তিন হাজার ১৭৭ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য প্রেরণ করা হয়েছে। যার মধ্যে ২ হাজার ৮৩৮ জনের ফলাফল এসেছে। আইসোলেশনে রয়েছে ৩২০ জন। যার মধ্যে মাইজদী শহীদ ভুলু স্টেডিয়ামে অস্থায়ীভাবে স্থাপিত কোভিড-১৯ ডেডিকেটেড হাসপাতালে  চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১৯ জন, সুস্থ হয়েছেন ২৭ জন এবং মারা গেছেন পাঁচ জন।

সিভিল সার্জন ডা. মো. মমিনুর রহমান জানান, জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩৫০ জন। এগুলোর মধ্যে রয়েছে বেগমগঞ্জে ১৭৮ জন, সদরে ৪১ জন, কবিরহাটে ৫৪ জন, চাটখিলে ২৬ জন, সোনাইমুড়ীতে ১৮ জন, হাতিয়ায় ছয় জন, সেনবাগে ১১ জন, কোম্পানীগঞ্জ সাত জন ও সুবর্ণচর উপজেলায় ১১ জন।

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top