জুলাই থেকে চিলাহাটি হয়ে ভারতে যাবে ট্রেন | The Daily Star Bangla
০৪:২০ অপরাহ্ন, জানুয়ারি ১৫, ২০২০ / সর্বশেষ সংশোধিত: ০৫:৪২ অপরাহ্ন, জানুয়ারি ১৫, ২০২০

জুলাই থেকে চিলাহাটি হয়ে ভারতে যাবে ট্রেন

ই এ এম আসাদুজ্জামান

নীলফামারীর চিলাহাটি হয়ে ভারতের সঙ্গে তৃতীয় সরাসরি ট্রেন যোগাযোগ চলতি বছরের জুলাইয়ে শুরু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। 

বাংলাদেশ রেলওয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, পশ্চিমবঙ্গের কুচবিহার জেলার হলদিবাড়ি স্টেশনের সঙ্গে চিলাহাটি স্টেশনের সংযোগ রেললাইন নির্মাণের কাজ পুরোদমে চলছে। ছয় মাসে এই প্রকল্পের অর্ধেক কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

বর্তমানে ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের রেল সংযোগ দুটি হলো ঢাকা-কলকাতা-ঢাকা এবং খুলনা-কলকাতা-খুলনা।

ভারতের সঙ্গে আরও উন্নত যোগাযোগের জন্য, বাংলাদেশ সরকার গত বছরের জুনে চিলাহাটি স্টেশন থেকে সীমান্ত পর্যন্ত বাংলাদেশের অংশে ৬.৭২৪ কিলোমিটার দীর্ঘ রেললাইন, স্টেশনটিতে ২.৬৩৬ কিলোমিটার লুপ লাইন, কালার লাইট সিগনালিং, টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা ইত্যাদি নির্মাণের প্রকল্প চালু করেছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ রেলওয়ের জ্যৈষ্ঠ উপ-সহকারী প্রকৌশলী তৌহিদুর রহমান।

এক বছরের মধ্যে এই কাজ শেষ করার জন্য ম্যাক্স ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিটেড ৬৯ কোটি টাকার কার্যাদেশ পেয়েছে।

বাংলাদেশ রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলামের সঙ্গে ভারতীয় হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলি গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে চিলাহাটি স্টেশনে কাজের উদ্বোধন করেছিলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করেন যে, ২০২০ সালের জুলাইয়ের মধ্যে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উভয় দেশের প্রধানমন্ত্রী এই রুটের উদ্বোধন করবেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভারতের রাষ্ট্রদূত বলেন, “রেলপথটি ১৯৬৫ সাল পর্যন্ত চালু ছিল। দার্জিলিং মেইল পশ্চিমবঙ্গের রানাঘাট হয়ে কলকাতার শিয়ালদহ স্টেশন থেকে ছেড়ে হলদিবাড়ি, জলপাইগুড়ি এবং শিলিগুড়ি হয়ে ভারতের উত্তরের অংশ দার্জিলিংয়ে প্রবেশের আগে এই দেশের (তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান) ভেড়ামারা, হার্ডিঞ্জ ব্রিজ, সান্তাহার, হিলি, পার্বতীপুর, নীলফামারী এবং চিলাহাটি স্টেশন পার করত।”

তিনি আরও ইঙ্গিত দিয়েছিলেন যে, নতুন রেল রুটটিও একই রকম হতে পারে।

বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক শহিদুল ইসলাম বলেছিলেন, “কাজ শেষ হওয়ার পরে, বাংলাদেশ রেলওয়ে ঢাকা–শিলিগুড়ি-ঢাকা রুটে ট্রেন চালাতে পারবে। এতে পর্যটকরা সহজে ভারতের পর্যটনকেন্দ্র দার্জিলিংয়ে যেতে পারবেন। আর ভারত সম্ভবত কলকাতা-শিলিগুড়ি রুটে একটি ট্রেন পরিচালনা করবে, এতে এই রুটে তাদের বর্তমান দূরত্ব ৫৩৭ কিলোমিটার থেকে কমে ২০০ কিলোমিটার হবে।”

তিনি জানান, বাংলাদেশ ও ভারতীয় কর্তৃপক্ষের মধ্যে আলোচনার পরে এই ব্যবস্থাটি চূড়ান্ত করা হবে।

প্রকল্পের দায়িত্বপ্রাপ্ত রোকনুজ্জামান শিহাব বলেছেন, প্রকল্পটির ৫০ ভাগ কাজ ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। আশা করা যায় যে জুনের মধ্যে কাজটি সম্পূর্ণ হয়ে যাবে।

চিলাহাটির স্টেশনমাস্টার মো. মবিন জানিয়েছেন, এরই মধ্যে, ভারতীয় কর্তৃপক্ষ হলদিবাড়ি স্টেশন থেকে চিলাহাটি সংলগ্ন সীমান্ত পর্যন্ত তাদের এলাকায় ৬.৫ কিলোমিটার রেললাইন নির্মাণ কাজ শেষ করেছে এবং সেই লাইনে পরীক্ষামূলকভাবে ট্রেন চালিয়েছে।

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top