চট্টগ্রামে বন্য হাতির আক্রমণে শিক্ষকসহ নিহত ৩ | The Daily Star Bangla
১১:৩০ পূর্বাহ্ন, নভেম্বর ২৪, ২০১৯ / সর্বশেষ সংশোধিত: ১১:৩২ পূর্বাহ্ন, নভেম্বর ২৪, ২০১৯

চট্টগ্রামে বন্য হাতির আক্রমণে শিক্ষকসহ নিহত ৩

ইউএনবি, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলায় পাহাড় থেকে লোকালয়ে চলে আসা বন্য হাতির আক্রমণে শিক্ষকসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। এছাড়া হাতির পালের তাণ্ডবে জমির ফসলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

আজ (২৪ নভেম্বর) সকালে উপজেলার কধুরখীল, সৈয়দনগর ও জ্যৈষ্ঠপুরা এলাকায় হাতির পৃথক আক্রমণের শিকার হয়ে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

নিহতরা হলেন- সাবেক প্রধান শিক্ষক জাকের হোছাইন (৬৫), আবু তাহের মিস্ত্রি (৬০), ও কৃষক আবদুল মাবুদ (৬০)।

বোয়ালখালী থানার পুলিশ পরিদর্শক মুহাম্মদ হেলাল উদ্দিন ফারুকী জানান, হাতির আক্রমণে এ পর্যন্ত তিনজনের মৃত্যুর খবর পেয়েছি।

কধুরখীল এক নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আবদুল করিম জানান, সকালে কধুরখীল তৈয়্যবিয়া তাহেরীয়া সুলতান মোস্তফা কমপ্লেক্সের পূর্বপাশে শরীফ পাড়া এলাকায় শস্যখেতে কাজ করার সময় স্থানীয় আবদুল লতিফ মিস্ত্রির সন্তান আবু তাহের মিস্ত্রি ৪-৫টি হাতির আক্রমণের শিকার হন। ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়েছে। তিনি তিন ছেলে ও এক মেয়ের জনক। নিহতের বাড়ি কধুরখীল শরীফপাড়া এলাকায়।

অন্যদিকে পূর্ব সৈয়দনগরে হাতির আক্রমণে মারা গেছেন খরণদ্বীপ বিজান বিবি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক জাকের হোছাইন (৬৫)। তিনি চরণদ্বীপ ইউনিয়নের পূর্ব সৈয়দনগর জাকের মাস্টারের বাড়ির মৃত আবদুল মোনাফের ছেলে।

নিহতের মেয়ে ফাহমিনা আফরোজ তারিন জানান, সকালে চাঁন্দারহাট জামে মসজিদের পাশে হাতির পাল তার বাবাকে (জাকের মাস্টার) আক্রমণ করে। গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে, অবস্থার অবনতি হলে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (চমেক) নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে হাতির পালটি পাহাড়ের দিকে যাওয়ার পথে শ্রীপুর খরণদ্বীপ ইউনিয়নের আমির পাড়ার আবদুল মাবুদ (৬০) নামে এক কৃষককে আক্রমণ করে। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. হাছান চৌধুরী বলেন, “হাতির আক্রমণে আবদুল মাবুদের মৃত্যু হয়েছে। তিনি স্থানীয় আলী আহমদের ছেলে। তার এক ছেলে ও তিন মেয়ে রয়েছে।”

বোয়ালখালী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মুহাম্মদ হেলাল উদ্দিন ফারুকী বলেন, “তিনজনের মৃত্যুর খবর পেয়েছি। হাতিগুলো দুভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছে।”

পুলিশ ঘটনাস্থলের আছে জানিয়ে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

উল্লেখ্য, গতকাল ভোরে উপজেলার জ্যৈষ্ঠপুরা পাহাড় থেকে লোকালয়ে নেমে আসে বাচ্চাসহ নয়টি হাতি। দিনভর হাতিগুলো পূর্ব কধুরখীল বায়তুল জামে মসজিদের সুপারি বাগানে অবস্থান নেয়।

আজ সকালে দুভাগে বিভক্ত হয়ে তাণ্ডব চালায়। হাতির পালটির একটি অংশ কধুরখীল-চরণদ্বীপের দিকে যায়, অন্যদল খরণদ্বীপ হয়ে পাহাড়ের দিকে যায়। এ নিয়ে এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে।

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top