ওসি প্রদীপসহ ৭ পুলিশ সদস্য সাময়িক বরখাস্ত | The Daily Star Bangla
১০:১৫ অপরাহ্ন, আগস্ট ০৭, ২০২০ / সর্বশেষ সংশোধিত: ১০:৩৭ অপরাহ্ন, আগস্ট ০৭, ২০২০

মেজর সিনহা হত্যা মামলা

ওসি প্রদীপসহ ৭ পুলিশ সদস্য সাময়িক বরখাস্ত

মুহাম্মদ আলী জিন্নাত, কক্সবাজার

সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলার আসামি টেকনাফ থানা থেকে প্রত্যাহারকৃত ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও বাহারছরা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক লিয়াকত আলীসহ সাত পুলিশ সদস্যকে চাকরি থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

আজ শুক্রবার রাত ৯টার দিকে কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন দ্য ডেইলি স্টারকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ সুপার বলেন, ‘উক্ত মামলার আসামি ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও পরিদর্শক লিয়াকত আলীকে পুলিশ সদর দপ্তর থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে।’

অপর আসামি এসআই নন্দ দুলাল রক্ষিত, কনস্টেবল সাফানুর করিম, কনস্টেবল কামাল হোসেন, কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মামুন ও এএসআই লিটন মিয়াকে পুলিশ সুপার বরখাস্ত করেছেন বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, ‘টেকনাফ থানার মামলা নম্বর ৯/২০২০, যার সিআর মামলা নম্বর ৯৪/২০২০ ইংরেজি (টেকনাফ), মামলায় টেকনাফের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত কর্তৃক কক্সবাজার জেলা পুলিশের সাত সদস্যের জামিন আবেদন নাকচ করে তাদের জেলে পাঠানোর বিষয়টি গত ৬ আগস্ট সন্ধ্যায় জেলা পুলিশ অবহিত হয়।’

এরপর, প্রদীপ কুমার দাশ ও লিয়াকত আলী দুই জন পরিদর্শক হওয়ায়, তাদের পুলিশ সদর দপ্তর থেকে এবং বাকি পাঁচ জনকে তাৎক্ষণিক চাকরি থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে, যোগ করেন তিনি।

গত ৩১ আগস্ট রাত সাড়ে ৯টার দিকে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন স্বেচ্ছায় অবসরে যাওয়া মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। এ ঘটনায় নিহতের বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস বাদী হয়ে প্রদীপ কুমার দাশ, পরিদর্শক লিয়াকত আলীসহ নয় জনকে আসামি করে টেকনাফ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ৫ আগস্ট সকালে মামলা দায়ের করেন।

৬ আগস্ট টেকনাফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত (আদালত নম্বর-৩) এর বিচারক মো. হেলাল উদ্দিনের আদালতে চাকরি থেকে বরখাস্ত হওয়া সাত আসামি আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইলে বিচারক জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে সবাইকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

পরে একই আদালতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (আইও) এর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত আসামি প্রদীপ কুমার দাশ, লিয়াকত আলী ও নন্দ দুলাল রক্ষিতকে সাত দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর ও বাকি আসামিদের জেল গেটে জিজ্ঞাসাবাদ করার আদেশ দেন।

র‍্যাব-১৫ মামলাটি তদন্ত করছে। আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী আগামী সাত কর্ম দিবসের মধ্যে তারা আদালতে তদন্তের অগ্রগতির প্রতিবেদন জমা দেবেন।

 

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top