আমরা যাকে মন্ত্রী বানিয়েছি সেই মন্ত্রীর কাজ কী: কাদের মির্জা | The Daily Star Bangla
০৮:৩৯ অপরাহ্ন, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০২১ / সর্বশেষ সংশোধিত: ০৮:৪৮ অপরাহ্ন, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০২১

গাড়ি বহরে হামলার প্রতিক্রিয়া

আমরা যাকে মন্ত্রী বানিয়েছি সেই মন্ত্রীর কাজ কী: কাদের মির্জা

নিজস্ব সংবাদদাতা, নোয়াখালী

বসুরহাট পৌরসভার মেয়র ও নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি আবদুল কাদের মির্জার গাড়ি বহরে হামলার প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেছেন, কাদের ইঙ্গিতে আজকে নিজাম হাজারী এবং একরাম চৌধুরী এত দাপট দেখায়? তারা আমার গাড়ি বহরে হামলা করার মতো ঘটনা ঘটাচ্ছে। এ দেশে কী সরকার নেই? এ দেশে কী প্রশাসন নেই?

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই কাদের মির্জা আরও বলেন, ‘আজ আমাদের এলাকার কী কোনো অভিভাবক নেই। কেউ কি প্রতিবাদ করার নেই।’

বড় ভাই সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, ‘আমরা যাকে মন্ত্রী বানিয়েছি সেই মন্ত্রীর কাজ কী? সেই মন্ত্রী অপশক্তির কাছে আজকে মাথানত করেছে।’

আজ বৃহস্পতিবার ভোরে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ থেকে সড়ক পথে শপথ গ্রহণের জন্য নির্বাচিত কাউন্সিলর ও অনুসারীদের নিয়ে চট্টগ্রাম যাওয়ার পথে ফেনীর দাঁগনভূঁইয়া পৌর সভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের করিমপুর এলাকায় তার গাড়ি বহরে হামলার প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে তাৎক্ষণিকভাবে ফেসবুক লাইভে এসে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে যোগদানের জন্য আসার পথে ফেনীর দাঁগনভূঁইয়াতে আমার গাড়ি বহরে হামলা করেছে। আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে নোয়াখালী-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একরাম চৌধুরী এবং ফেনীর সংসদ সদস্য নিজাম হাজারীর সন্ত্রাসীরা আমার গাড়ির গতি রোধ করার চেষ্টা করে। একটা ট্রাক থাকার কারণে আমার গাড়ি দ্রুত আসার সুযোগ পেয়েছে। যে কারণে আমার কোনো ক্ষতি করতে পারেনি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমার পেছনে থাকা কাউন্সিলর ও নেতা-কর্মীদের বহনকারী ১০-১২টি গাড়ি ছিলো। সেগুলোর ওপর হামলা করেছে। গাড়িতে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করা হয়েছে। এ ঘটনায় সেলিম নামে এক ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা আহত হয়েছেন।’

তিনি বলেন, ফেনীতে যে হত্যার রাজনীতি চলছে, আমি আগেও বলেছিলাম এটা বন্ধ করার জন্য। কিন্তু কেন বন্ধ করা হচ্ছে না। কাদের ইঙ্গিতে ও শক্তিতে ফেনীতে নিজাম হাজারী ও নোয়াখালীতে একরাম চৌধুরী এত দাপট দেখায়?

তিনি আরও বলেন, ‘ফেনীর জনপ্রিয় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান একরামকে যেভাবে গুলি করে ও পুড়িয়ে হত্যা করা হয়েছে ঠিক একই কায়দায় আমাকেও হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। দাঁগনভুঁইয়াতে ফখরুল ইসলাম নামে একজনকে হত্যা করেছে। ২০১৮ সালে দাঁগনভুঁইয়া উপজেলা চেয়ারম্যান দিদারুল কবির রতনের বাহিনী ও তার সন্ত্রাসী প্যানেল মেয়র সাইফুলের নেতৃত্বে ফখরুল ইসলামকে হত্যা করা হয়েছে। আজ ফেনীতে যে হত্যার অপরাজনীতি চলছে সেটি বন্ধ করার জন্য আগেও আমি কথা বলেছিলাম। কিন্তু কেন বন্ধ করা হচ্ছে না?’

শপথ অনুষ্ঠান থেকে এলাকায় ফিরে এদেরকে দল থেকে বহিষ্কারের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘আমি বলেছি, আমি সাহস করে সত্য কথা বলব। অন্যায়, অবিচার, জুলুমের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করব। আমি গরীবের পক্ষে আছি। ইনশাআল্লাহ থাকব।’

জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এই ঘটনাগুলোর সঙ্গে যারাই জড়িত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন। তা না হলে আপনার সকল অর্জন এরা ধ্বংস করবে। এদেরকে কারা আজকে শেল্টার দিচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিন। তাদের চিহ্নিত করেন। সে যত বড় নেতাই হোক, যত বড় মন্ত্রীই হোক, তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বিষয়টি দেখবেন।’

আজ চট্টগ্রাম থেকে শপথ গ্রহণ শেষে পুলিশ পাহারায় বিকালে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ বসুরহাট পৌঁছান আব্দুল কাদের মির্জা। বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে তিনি বসুরহাট রুপালী চত্বর এলাকায় তার গাড়ি বহরে হামলার প্রতিবাদে আয়োজিত একটি প্রতিবাদ সমাবেশে যোগ দেন। এসময় নেতা কর্মীদের উদ্দেশে বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তার কথা হয়েছে। নেত্রীকে তিনি নোয়াখালী ও ফেনীর অপরাজনীতির বিষয়ে অনেক কথা বলেছেন। নেত্রী বলেছেন, তিনি বিষয়টি দেখবেন। তাই নেত্রীর প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে পূর্ব ঘোষিত হরতাল, অবরোধ ও সংবাদ সম্মেলন কর্মসূচী স্থগিত ঘোষণা করছেন।

বড় ভাই ওবায়দুল কাদেরের ওপর তার মনে কষ্ট আছে জানিয়ে কাদের মির্জা বলেন, ‘ওবায়দুল কাদের সাহেব, আমি আপনার ভাই নাকি একরাম চৌধুরী, নিজাম হাজারী আপনার ভাই। নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি খায়রুল আনাম চৌধুরী সেলিম সুবিধার লোক না। তিনি একরাম চৌধুরীর কাছ টাকা খেয়ে উল্টা-পাল্টা কথা বলেন। বসুরহাটে এক ওয়াজ মাহফিলে উস্কানিমূলক বক্তব্য দেওয়ায় এক মাওলানাকে পুলিশে সোপর্দ করেছি। ওই মাওলানা সরকার বিরোধী ও সাম্প্রদায়িক কথা বলছিলেন। শেখ হাসিনার সরকার কওমি মাদরাসার সনদ প্রথা চালু করেছেন। ওই সনদ দিয়ে মাওলানারা বিভিন্ন জায়গায় চাকরি করার সুযোগ পাচ্ছে। এটা অন্য কোনো সরকারের আমলে হয়নি।’

করোনা মহামারি চলাকালীন সময়ে সরকার কওমি মাদরাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ব্যাপক সহযোগিতা করেছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘কিন্তু তারপরেও তারা সরকারের বিরুদ্ধে উস্কানিমূলক কথা বলা দুঃখজনক।’

আরও পড়ুন:

ফেনীতে কাদের মির্জার গাড়ি বহরে হামলার অভিযোগ

অনিয়ম-দুর্নীতি নিয়ে বলায় জাতীয়ভাবে আমাকে উন্মাদ বলা হয়: কাদের মির্জা

আল্লাহর গজব পড়বে, আমি ঈমানদার: কাদের মির্জা

অনেক বিপদে আছি, চাপে আছি, রাতে আমার ঘুম হয় না: কাদের মির্জা

বসুরহাটে কাদের মির্জা নির্বাচিত

আমি কি স্বঘোষিত প্রার্থী, এতো অপমান: সেতুমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে কাদের মির্জা

অস্ত্র তাক করে রেখেছে, আমাকে মেরে ফেলতে পারে: কাদের মির্জা

কেউ মারা গেলে ডিসি, এসপি ও রিটার্নিং কর্মকর্তার রেহাই নেই: কাদের মির্জা

ডেইলি স্টারকে যা বললেন ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই কাদের মির্জা

সাহস করে সত্য কথা বলা পছন্দ করেন প্রধানমন্ত্রী: কাদের মির্জা

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top