আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র দিবসে দ্য ডেইলি স্টার সম্পাদকের নিবন্ধের প্রতিবাদ বিএনপির | The Daily Star Bangla
০৯:২৮ অপরাহ্ন, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২০ / সর্বশেষ সংশোধিত: ০৯:৪৫ অপরাহ্ন, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২০

আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র দিবসে দ্য ডেইলি স্টার সম্পাদকের নিবন্ধের প্রতিবাদ বিএনপির

স্টার অনলাইন রিপোর্ট

গণতন্ত্র নিয়ে লেখা নিবন্ধে নিজের মতামতের জন্য দ্য ডেইলি স্টারের সম্পাদক ও প্রকাশক মাহফুজ আনামের কঠোর সমালোচনা করে বিএনপি জানিয়েছে, এর মাধ্যমে দলটির বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হয়েছে।

গত ১৫ সেপ্টেম্বর আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র দিবসে দ্য ডেইলি স্টারে ‘After 30 years of autocracys demise, democracy still remains a distant dream’ শিরোনামে একটি নিবন্ধ লিখেন মাহফুজ আনাম।

সেই নিবন্ধের বিষয়ে প্রতিবাদ জানাতে আজ শুক্রবার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে বিএনপি।

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীসহ দলটির সাবেক ছাত্র নেতারা এসময় উপস্থিত ছিলেন।

রিজভীর অভিযোগ, নিবন্ধে লেখক সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে নিয়ে মিথ্যা, বিভ্রান্তিকর, উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও অপ্রাসঙ্গিক মতামত দিয়েছেন।

তিনি দাবি করেছেন, খালেদা জিয়া সম্পর্কে লেখকের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ মন্তব্য জনমনে ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে। লেখায় বিএনপির প্রতি বিদ্বেষ পোষণ করেছেন লেখক।

‘যা হলুদ সাংবাদিকতা ও বর্তমান মিডনাইট সরকারের নির্লজ্জ স্তুতিরই সমতুল্য’, বলেন তিনি।

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘মাহফুজ আনাম ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা নিয়ে তার প্রবন্ধে যা লিখেছেন, তা অবৈধ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার পরিষদবর্গের হাইপার-প্রোপাগান্ডা ও কলুষিত মিথ্যাচারের প্রতিধ্বনি মাত্র।’

‘তার লেখালেখির ভিশন-মিশন হলো বিএনপির বিরুদ্ধে বানোয়াট ও ভিত্তিহীন কাহিনী রচনা করে তা প্রকাশ করা’, যোগ করেন তিনি।

রিজভী বলেন, ‘ভয়ে হোক বা উচ্ছিষ্ট ভোগেচ্ছায় হোক, গণতন্ত্রহীন ও বেপরোয়া আচরণে লিপ্ত আওয়ামী লীগ সরকারকে খুশী করাই এখন তার আরাধ্য।’

বিএনপির দাবি, মাহফুজ আনামদের সারথি হয়ে তথাকথিত সুশীল শ্রেণীর বেশ কয়েকজন এ দেশে গণতন্ত্র হত্যা করে এক এগারোর অসাংবিধানিক শাসন প্রতিষ্ঠার গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছিল।’

দলটির আরও দাবি, স্বচ্ছ সাংবাদিকতা নয়, বিদেশী অর্থদাতা প্রভু ও দেশীয় গোয়েন্দাদের এজেন্ট হিসেবেই কাজ করেছেন মাহফুজ আনাম।

রিজভী বলেন, ‘ডেইলি স্টার গ্রুপের পত্রিকায় গণতান্ত্রিক সরকারের পরিবর্তে সেনা সমর্থিত অগণতান্ত্রিক, একনায়কতান্ত্রিক স্বৈরশাসনকে স্বাগত জানিয়ে প্রকাশ করা হয়েছিল একটির পর একটি নিবন্ধ।’

তিনি বলেন, ‘মাহফুজ আনাম মিথ্যা, অসত্য ও ভিত্তিহীন সংবাদ পরিবেশন করে রাজনীতিকদের গ্রেপ্তারের পটভূমি রচনার ক্ষেত্রে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিলেন।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘তার নিবন্ধ গণতন্ত্রের জন্য মায়া কান্না এবং হলুদ সাংবাদিকতার নতুন সংযোজন বলে আমরা মনে করি।’

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top