আপডেট: উইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের ঐতিহাসিক জয় | The Daily Star Bangla
০৯:৪৮ পূর্বাহ্ন, ডিসেম্বর ০২, ২০১৮ / সর্বশেষ সংশোধিত: ০৩:৫৬ অপরাহ্ন, ডিসেম্বর ০২, ২০১৮

আপডেট: উইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের ঐতিহাসিক জয়

ক্রীড়া প্রতিবেদক

চলতি সিরিজেই ঘরের মাঠে উইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম কোন টেস্ট ম্যাচ জিতেছিল বাংলাদেশ। এবার ঘরের মাঠে তাদের হোয়াইটওয়াশ করেই ছাড়ল স্বাগতিকরা। এমনকি বাংলাদেশের ১৮ বছরের টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথমবারের  মতো ইনিংস ব্যবধানে জয় পেল টাইগাররা। উইন্ডিজের বিপক্ষে ইনিংস ও ১৮৪ রানের ঐতিহাসিক জয় পেয়েছে সাকিব আল হাসানের দল।

মূলত স্পিন সহায়ক উইকেটে টাইগারদের দারুণ ব্যাটিংই জয়ের ভিত গড়ে দেয়। প্রথম ইনিংসে ৫০৮ রান করেছিল টাইগাররা। এরপর বাকি কাজ সারেন স্পিনাররা। মূলত মেহেদী হাসান মিরাজের ঘূর্ণিতেই খুন হয় ক্যারিবিয়ানরা। একাই ১২ উইকেট তুলে নিয়েছেন মিরাজ। দারুণ বোলিং করেছেন সাকিবও। ৪ উইকেট পেয়েছেন তিনি।

তবে সাজঘরে আসা যাওয়ার মিছিলে ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যানদের মধ্যে একমাত্র ব্যতিক্রম ছিল শিমরন হেটমায়ার। ওয়ানডে স্টাইলে ব্যাটিং করে ৯২ বলে ৯৩ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেছিলেন তিনি। শেষ দিকে কেমার রোচ ও শেরমন লুইসও আগ্রাসী ব্যাটিং করে ৪২ রানের জুটি গড়েছিলেন। কিন্তু তাতে কেবল পরাজয়ের ব্যবধানই কমেছে। শেষ রক্ষা হয়নি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস৫০৮

উইন্ডিজ প্রথম ইনিংস: ৩৬.৪ ওভারে ১১১ (ব্র্যাথওয়েট ০, পাওয়েল ৪, হোপ ১০, আম্রিস ৭, চেজ ০, হেটমায়ার ৩৯, ডওরিচ ৩৭, বিশু ১, রোচ ১, ওয়ারিক্যান ৫*, লুইস ০*; সাকিব ৩/২৭ ,মিরাজ ৭/৫৮, নাঈম ০/৯, তাইজুল ০/১০, মাহমুদউল্লাহ ০/০)। 

উইন্ডিজ দ্বিতীয় ইনিংস:  ২১৩ (ফলোঅন) (ব্র্যাথওয়েট ০, পাওয়েল ৬, হোপ ২৫, আম্রিস ৪, চেজ ৩, হেটমায়ার ৯৩, ডওরিচ ৩, বিশু ১২, রোচ ৩৭*, ওয়ারিক্যান ০, লুইস ২০; সাকিব ১/৬৫, মিরাজ ৫/৫৯, তাইজুল ৩/৪০, মাহমুদউল্লাহ ০/৬, নাঈম ১/৩৪)।

ফলাফল: বাংলাদেশ ইনিংস ও  ১৮৩ রানে জয়ী।

সিরিজ: বাংলাদেশ ২-০ ব্যবধানে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: মেহেদী হাসান মিরাজ।

ম্যান অব দ্য সিরিজ: সাকিব আল হাসান।

লুইসকে ফেরালেন তাইজুল

উইন্ডিজের শেষ ব্যাটসম্যান শেরমন লুইসকে ফিরিয়েছেন তাইজুল ইসলাম। তার বলে এলবিডাব্লিউর ফাঁদে পড়েছেন লুইস।

ওয়ারিক্যানকে বোল্ড করে মিরাজের আরেক পাঁচ 

জোমেল ওয়ারিক্যানকে বোল্ড করে দ্বিতীয় ইনিংসেও মেহেদী হাসান মিরাজ পাঁচ উইকেট নিয়েছেন। ৫ বল খেলে কোন রানই করতে পারেননি ওয়ারিক্যান। ১৭১ রানে নবম উইকেট হারিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। 

৪৮ ওভার শেষে উইন্ডিজের সংগ্রহ ৯ উইকেটে ১৭৪ রান। ১৫ রানে ব্যাট করছেন কেমার রোচ। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন শেরমন লুইস।

বিপদজনক হেটমায়ারকে ফেরালেন মিরাজ

এক প্রান্তে নিয়মিত বিরতিতেই উইকেট তুলে নিচ্ছিলেন টাইগাররা। কিন্তু অপর প্রান্তে টাইগারদের জয়ে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন শিমরন হেটমায়ার। শুরু থেকেই দারুণ আক্রমণাত্মক ব্যাটিং উপহার দিয়ে সেঞ্চুরির কাছাকাছি চলে গিয়েছিলেন তিনি। ৯টি ছক্কাই মেরেছিলেন এ ব্যাটসম্যান। মেহেদী হাসান মিরাজের বলে  আরও একটি মারতে গিয়ে লংঅফে ধরা পড়েছেন মোহাম্মদ মিঠুনের হাতে।

৯২ বলে ৯৩ রানের ইনিংস খেলেছেন হেটমায়ার। এ রান করতে ৯টি ছক্কার পাশাপাশি ১টি চারও মেরেছেন তিনি।

৪৬ ওভার শেষে উইন্ডিজের সংগ্রহ ৮ উইকেটে ১৬৭ রান। ১১ রানে ব্যাট করছেন কেমার রোচ। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন জোমেল ওয়ারিক্যান।

বিশুকে ফিরিয়ে মিরাজের ১০ উইকেট

ক্যারিয়ারে দ্বিতীয়বারের মতো এক টেস্টে ১০ উইকেট পেলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। দেবেন্দ্র বিশুকে দ্বিতীয় স্লিপে দাঁড়ানো সৌম্য সরকারের তালুবন্দি করে এ কীর্তি গড়েন এ অফি। ৩১ বলে ১২ রান করেছেন বিশু।

৪২ ওভার শেষে উইন্ডিজের সংগ্রহ ৭ উইকেটে ১৪৫ রান। ৮১ রানে ব্যাট করছেন শিমরন হেটমায়ার। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন কেমার রোচ।

ডউরিচকে ফেরালেন নাঈম

সাকিব-তাইজুল-মিরাজদের সঙ্গে এবার যোগ দিয়েছেন তরুণ নাঈম হাসান। ফর্মে থাকা শেন ডউরিচকে ফিরিয়েছেন তিনি। তার বলে রক্ষণাত্মক ঢঙে খেলতে গেলে ব্যাটের কানায় লেগে স্লিপে দাঁড়ানো সৌম্য সরকারের তালুবন্দি হয়েছেন ডউরিচ। ১৮ বলে ৩ রান এসেছে তার ব্যাট থেকে।

৩৩ ওভার শেষে উইন্ডিজের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ৯৬ রান। ৫০ রানে ব্যাট করছেন হেটমায়ার। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন দেবেন্দ্র বিশু।

হেটমায়ারের হাফসেঞ্চুরি

এক প্রান্তে উইকেট পরতে থাকলেও আরেক প্রান্তে দারুণ ব্যাট করছেন শিমরন হেটমায়ার। দারুণ ছন্দে থাকা এ ব্যাটসম্যান এর মধ্যেই তুলে নিয়েছেন নিজের হাফসেঞ্চুরি। মাত্র ৫৮ বলে ফিফটি স্পর্শ করা এ ব্যাটসম্যান ছক্কা মেরেছেন চারটি।

হোপকে ফেরালেন মিরাজ

ফলোঅনে পড়ার পর ২৯ রানে ৪ উইকেট খুইয়ে ধুঁকতে থাকা ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংস প্রতিরোধ গড়েছিলেন শেমরন হেটমায়ার আর শাই হোপ। ৫৬ রানের জুটির পর হোপকে ফিরিয়ে সেই প্রতিরোধ ভেঙেছেন মিরাজ। মিরাজের বলে মিডউইকেট দিয়ে উড়াতে গিয়ে সাকিবের হাতে জমা পড়েন হোপ। ৮৫ রানে পঞ্চম উইকেট হারায় ক্যারিবিয়ানরা। আর ৫ উইকেট নিলেই তাই এই টেস্ট জিতে যাবে বাংলাদেশ। 

২৮ ওভার শেষে উইন্ডিজের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৮৫ রান। ৪২ রানে ব্যাট করছেন হেটমায়ার। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন শেন ডউরিচ।

হেটমায়ার-হোপ জুটিতে পঞ্চাশ

২৯ রানে নেই টপ অর্ডারের সেরা চার উইকেট। এরপর শাই হোপের সঙ্গে যোগ দিয়ে দলের হাল ধরেছেন ফর্মে থাকা শিমরন হেটমায়ার। দুই ব্যাটসম্যানই হাত খুলে ব্যাট চালিয়ে যাচ্ছেন। ফলে দ্রুতই গড়েছেন পঞ্চাশ রানের জুটি।

২৪ ওভার শেষে উইন্ডিজের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ৭৯ রান। হেটমায়ার ৩৬ এবং হোপ ২৫ রানে ব্যাট করছেন। এখনও উইন্ডিজ পিছিয়ে আছে ৩১৮ রানে।

প্রথম সেশনেই বড় বিপদে উইন্ডিজ

দারুণ একটি সেশন কাটিয়েছে বাংলাদেশ। প্রথম ইনিংসের শেষ ৫ উইকেট তো তুলে নিয়েছেই, সঙ্গে ফলোঅনে পড়া দলের দ্বিতীয় ইনিংসেরও চারটি তুলে নিয়েছেন টাইগাররা। উইন্ডিজের দ্বিতীয় ইনিংসে তাইজুল ইসলাম পেয়েছেন জোড়া উইকেট। সাকিব আল হাসান ও মেহেদী হাসান মিরাজের শিকার একটি করে উইকেট।

লাঞ্চের আগে উইন্ডিজের সংগ্রহ ১৬ ওভারে ৪ উইকেটে ৪৬ রান। শাই হোপ ১৮ এবং শিমরন হেটমায়ার ১৩ রানে ব্যাট করছেন। উইন্ডিজ এখনও পিছিয়ে আছে ৩৫১ রানে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: (দ্বিতীয় দিনের লাঞ্চ পর্যন্ত)

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস:  ৫০৮

উইন্ডিজ প্রথম ইনিংস: ৩৬.৪ ওভারে ১১১ (ব্র্যাথওয়েট ০, পাওয়েল ৪, হোপ ১০, আম্রিস ৭, চেজ ০, হেটমায়ার ৩৯, ডওরিচ ৩৭, বিশু ১, রোচ ১, ওয়ারিক্যান ৫*, লুইস ০*; সাকিব ৩/২৭ ,মিরাজ ৭/৫৮, নাঈম ০/৯, তাইজুল ০/১০, মাহমুদউল্লাহ ০/০)।  

দ্বিতীয় ইনিংস: ১৬ ওভারে (ফলোঅন) ৪৬/৪ (ব্র্যাথওয়েট ০, পাওয়েল ৬, হোপ ব্যাটিং ১৮*, আম্রিস ৪, চেজ ৩, হেটমায়ার ১৩*; সাকিব ১/১০, মিরাজ ১/১৮, তাইজুল ২/১১, মাহমুদউল্লাহ ০/৬)।

চেজকেও ফেরালেন তাইজুল

প্রথম ওভারে সুনীল আমব্রিসকে আউট করার পরের ওভারে রোস্টন চেজকে ফিরিয়েছেন তাইজুল ইসলাম। তার বলে ড্রাইভ করতে গিয়ে এক্সট্রা কাভারে মুমিনুল হকের হাতে ধরা পড়েছেন চেজ। ফলে শুরুতেই ধুঁকছে উইন্ডিজ। ৯ বলে ৩ রান করেছেন চেজ।

১৩ ওভার শেষে উইন্ডিজের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ২৯ রান। ১৪ রানে ব্যাট করছেন শাই হোপ। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন শিমরন হেটমায়ার।  

বল হাতে নিয়েই উইকেট পেলেন তাইজুল

তৃতীয় দিনে প্রথম বারের মতো বল হাতে নিয়ে প্রথম ওভারেই উইকেট পেয়েছেন তাইজুল ইসলাম। তার বল লেগে ঘোরাতে চেয়েছিলেন সুনীল আমব্রিস। কিন্তু লাইন মিস করলে এলবিডাব্লিউর ফাঁদে পড়েন তিনি। ২০ বলে ৪ রান করেছেন আমব্রিস।

১১ ওভার শেষে উইন্ডিজের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ২৫ রান। শাই হোপ ১২ রানে ব্যাট করছেন। ১ রানে উইকেটে আছেন নতুন ব্যাটসম্যান রোস্টন চেজ।

শুরুতেই সাকিবের আঘাত

আগের ইনিংসেও উইন্ডিজ অধিনায়ক ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েটকে প্রথম ওভারে ফিরিয়ে উইকেট পতন শুরু করেছিলেন বাংলাদেহস অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। দ্বিতীয় ইনিংসেও হলো তাই পার্থক্য শুধু আগের বার বোল্ড হলেও এবার পড়লেন এলবিডাব্লিউর ফাঁদে। ৪ বলে ১ রান করেছিলেন ব্র্যাথ ওয়েট।

প্রথম ওভার শেষে উইন্ডিজের সংগ্রহ ১ উইকেটে ৩ রান। ১ রানে ব্যাট করছেন কাইরেন পাওয়েল। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন শাই হোপ।

মিরাজ-সাকিবের স্পিনে গুটিয়ে ফলোঅনে উইন্ডিজ

পাঁচ উইকেট হারিয়ে দ্বিতীয় দিন শুরু করা উইন্ডিজ দ্বিতীয় দিনে টিকতে পারল না এক ঘন্টাও। শেষ পাঁচ উইকেটের চারটাই নিলেন মেহেদী হাসান মিরাজ, বাকিটা নিলেন সাকিব আল হাসান। ফলে প্রথম ইনিংসে বিশাল লিডই পেল বাংলাদেশ। উইন্ডিজকে মাত্র ১১১ রানে ধসিয়ে দিয়ে ৩৯৭ রানে এগিয়ে রইল স্বাগতিকরা। ইতিহাসে প্রথমবারের মতো কোন দলকে ফলোঅন করালো বাংলাদেশ। টেস্টে বাংলাদেশের বিপক্ষে সর্বনিম্ন রানে গুটিয়ে যাওয়ার ঘটনাও এটি। 

উইন্ডিজকে এতো অল্প রানে গুটিয়ে দেওয়ার মূল কারিগরই ছিলেন মিরাজ। একাই সাতটি উইকেট তুলে নিয়েছেন এ অফস্পিনার। যা তার ক্যারিয়ার সেরা। দারুণ বোলিং করেছেন অধিনায়ক সাকিবও। তিনিও পেয়েছেন তিনটি উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ৫০৮

উইন্ডিজ প্রথম ইনিংস: ৩৬.৪ ওভারে ১১১ (ব্র্যাথওয়েট ০, পাওয়েল ৪, হোপ ১০, আম্রিস ৭, চেজ ০, হেটমায়ার ৩৯, ডওরিচ ৩৭ , বিশু ১, রোচ ১, ওয়ারিক্যান ৫* , লুইস ০* ; সাকিব ৩/২৭ ,মিরাজ ৭/৫৮, নাঈম ০/৯, তাইজুল ০/১০, মাহমুদউল্লাহ ০/০)।

লুইসকে ফেরালেন সাকিব  

আগের বলেই রিভিউ নিয়ে ব্যর্থ হয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। তবে আফসোস দীর্ঘ হতে দেননি। পরের বলেই শেরমন লুইসকে ফিরিয়েছেন অধিনায়ক। তার বলে রক্ষণাত্মক ভাবে খেলতে গিয়ে লাইন মিস করলে প্যাডে লাগে বল। ফলে এলবিডাব্লিউর ফাঁদে পড়েন লুইস।

ডরউইচকে ফিরিয়ে মিরাজের সাত

দুর্দান্ত বোলিং করছেন মেহেদী হাসান। তার বোলিং ঘূর্ণিতে রীতিমতো কাঁপছে উইন্ডিজ। এর মধ্যেই সাত উইকেট তুলে নিয়েছেন তিনি। দলের শেষ স্বীকৃত ব্যাটসম্যান শেন ডউরিচকে ফেলেছেন এলবিডাব্লিউর ফাঁদে। যদিও রক্ষণাত্মকভাবেই খেলতে চেয়েছিলেন এ উইন্ডিজ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। পড়ে রিভিউও নিয়েছিলেন। কিন্তু ভাগ্য সঙ্গ দেয়নি। ৭৫ বলে ৩টি চারে ৩৭ রান করেছেন ডউরিচ।

৩৬ ওভার শেষে উইন্ডিজের সংগ্রহ ৯ উইকেটে ১১০ রান। ৪ রানে ব্যাট করছেন জোমেল ওয়ারিক্যান। শেষ ব্যাটসম্যান শেরমন লুইস মাঠে নেমেছেন।

রোচকেও ফেরালেন মিরাজ

রক্ষণাত্মক ঢঙে খেলতে গিয়ে নিজেদের উইকেট আগলে রাখতে পারেননি সতীর্থরা। হয়তো এটা ভেবেই লেজের ব্যাটসম্যান কেমার রোচ আক্রমণাত্মক হতে গিয়েছিলেন। কিন্তু টাইগারদের কোন ক্ষতি করার আগেই তাকে ফিরিয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। লংঅনে লিটন কুমার দাসের তালুবন্দি হয়ে ফিরেছেন তিনি। ৫ বলে ১ রান করেছেন রোচ।

৩২ ওভার শেষে উইন্ডিজের সংগ্রহ ৮ উইকেটে ৯৩ রান। ২৬ রানে ব্যাট করছেন শেন ডউরিচ। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন জোমেল ওয়ারিক্যান।

বিশুকে ফিরিয়ে মিরাজের পঞ্চম উইকেট

হেটমায়ারকে আউট করে উইন্ডিজের লেজ বের এনেছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। এরপর আবারো আঘাত হেনেছেন এ স্পিনার। দেবেন্দ্র বিশুকে আউট করে নিজের পঞ্চম উইকেট তুলে নিয়েছেন তিনি। তবে এ আউটে দারুণ কৃতিত্ব আছে অভিষিক্ত সাদমাদ ইসলামের। সিলি পয়েন্টে দারুণ ক্যাচ লুফে নিয়েছেন তিনি। ১০ বলে ১ রান করেছেন বিশু।

৩০ ওভার শেষে উইন্ডিজের সংগ্রহ ৭ উইকেটে ৮৮ রান। ২২ রান নিয়ে ব্যাট করছেন শেন ডউরিচ। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন কেমার রোচ।

হেটমায়ারকে ফেরালেন মিরাজ

উইকেটে নেমেই আগ্রাসী ব্যাট চালাচ্ছিলেন শিমরন হেটমায়ার। তবে টাইগারদের বড় ক্ষতি করার আগেই তাকে ফিরিয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। তার বলে খেলতে গেলে ঠিক ভাবে না লাগায় ক্যাচ তুলে দেন এ ক্যারিবিয়ান। সে ক্যাচ নিজেই লুফে নেন মিরাজ। ৫৩ বলে ৩টি চার ও ১টি ছক্কায় ৩৯ রান করেছেন হেটমায়ার। আগের দিন উইন্ডিজের টানা পাঁচ ব্যাটসম্যানকে বোল্ড করেছিল বাংলাদেশ। তবে তৃতীয় দিনে ক্যাচ নিয়ে সে বলয় ভেঙেছেন টাইগাররা।

২৮ ওভার শেষে উইন্ডিজের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ৮৭ রান। ২১ রানে ব্যাট করছেন শেন ডউরিচ। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন দেবেন্দ্র বিশু।

হেটমায়ার-ডাওরিচ জুটিতে পঞ্চাশ

২৯ রানে প্রথম সারির পাঁচ ব্যাটসম্যানকে হারানো উইন্ডিজকে টানছেন শিমরন হেটমায়ার ও শেন ডাওরিচ। ষষ্ঠ উইকেটে এর মধ্যেই গড়েছেন পঞ্চাশ রানের জুটি। মেহেদী হাসান মিরাজকে ছক্কা মেরে এ জুটির পঞ্চাশ পূরণ করেন হেটমায়ার। ৭৯ বলে আসে এ জুটির পঞ্চাশে।

২৬ ওভার শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৮২। হেটমায়ার ৩৯ ও ডউরিচ১৭ রানে ব্যাট করছেন।

দ্বিতীয় দিন শেষে সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ১৫৪ ওভারে ৫০৮ (সাদমান ৭৬, সৌম্য ১৯, মুমিনুল ২৯, মিঠুন ২৯, সাকিব ৮০, মুশফিক ১৪, মাহমুদউল্লাহ ১৩৬, লিটন  ৫৪, মিরাজ ১৮, তাইজুল ২৬, নাঈম ১২; রোচ ২/৬১, লুইস ১/৬৯, চেজ ১/১১১, ওয়ারিক্যান ২/৯১, বিশু ২/১০৯, ব্র্যাথওয়েট ০/৫৭)।

উইন্ডিজ প্রথম ইনিংস: ২৪ ওভারে ৭৫/৫ (ব্র্যাথওয়েট ০, পাওয়েল ৪, হোপ ১০, আম্রিস ৭, চেজ ০, হেটমায়ার ব্যাটিং ৩২*, ডওরিচ ব্যাটিং ১৭* ; সাকিব ২/১৫ ,মিরাজ ৩/৩৬, নাঈম ০/৯, তাইজুল ০/১০, মাহমুদউল্লাহ ০/০) ।

 

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top