সুপার লিগ ইস্যুতে উয়েফাকে সমর্থন ফিফার | The Daily Star Bangla
০৫:০৬ অপরাহ্ন, এপ্রিল ২০, ২০২১ / সর্বশেষ সংশোধিত: ০৫:০৮ অপরাহ্ন, এপ্রিল ২০, ২০২১

সুপার লিগ ইস্যুতে উয়েফাকে সমর্থন ফিফার

স্পোর্টস ডেস্ক

ইউরোপিয়ান সুপার লিগ আয়োজনের ঘোষণা আসার পর থেকেই এর তীব্র বিরোধিতা করে আসছে ইউরোপিয়ান ফুটবল নিয়ন্ত্রক সংস্থা উয়েফা। এ লিগে যোগ দিতে চাওয়া সব ক্লাব, এমনকি অংশ নেওয়া খেলোয়াড়দের আজীবন নিষিদ্ধ করার হুমকি দিয়েছে সংস্থাটি। তবে এ হুমকি পাত্তা না দিয়ে নিজেদের মতোই এগিয়ে চলেছে জায়ান্ট ক্লাবগুলো। কাউকে নিষিদ্ধ করতে পারবে না বলেই জানিয়েছিলেন সুপার লিগ ও রিয়াল মাদ্রিদ সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ। কিন্তু উয়েফাকে সমর্থন দিচ্ছে ফিফা।

মূলত, সুপার লিগ নিয়ে ধোঁয়াশার মধ্যেই আছেন ফুটবল ভক্তরা। আয়োজকদের দাবী, ফুটবলের উন্নয়নের জন্যই এমন সিদ্ধান্ত। উয়েফা বলছে, এমন আসর কেবল ফুটবলের ধ্বংসই ডেকে আনবে। দুই পক্ষই নিজেদের হয়ে যুক্তি দিয়ে যাচ্ছে। শেষ পর্যন্ত ফিফার সিদ্ধান্ত জানার অপেক্ষায় ছিলেন অনেকেই। যদিও কিছুটা ইঙ্গিত ছিল উয়েফার পক্ষেই থাকবে ফিফা। শেষ পর্যন্ত তাই হয়েছে। সুপার লিগের আত্মপ্রকাশের পর নিজেদের অবস্থান জানিয়ে দিয়েছেন ফিফা সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনো।

ফিফা কোনোভাবেই সুপার লিগকে ফিফা সমর্থন করতে পারে না বলেই জানালেন ফিফা সভাপতি, 'এটা নিশ্চিত যে ফিফা কোনোভাবেই সুপার লিগকে অনুমোদন দিচ্ছে না। তাদের অনুমোদন দেওয়া অসম্ভব। আর এ ব্যাপারে কোনো সংশয় নেই। ফিফা, উয়েফাকে পূর্ণ সমর্থন দিচ্ছে। আমার, আমাদের কাজ হচ্ছে ক্লাব, জাতীয় দল এবং টুর্নামেন্টগুলোকে রক্ষা করা।'

সমর্থকদের কথা ভেবেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানান ফিফা সভাপতি, 'আমি ইউরোপিয়ান ফুটবল, উয়েফা, ৫৫টি অ্যাসোসিয়েট মেম্বার, লিগ, ক্লাব, খেলোয়াড় এবং সকল সমর্থকদের সমর্থনে ফিফার প্রেসিডেন্ট নিযুক্ত হয়েছি। আমরা দেখতে পাচ্ছি যে স্বল্পমেয়াদী আর্থিক লাভের জন্য অনেক কিছুই ফেলে দিতে হচ্ছে। মানুষকে খুব সাবধানে চিন্তা করতে হবে এবং প্রতিফলন করতে হবে এবং দায়িত্ব গ্রহণ করতে হবে। আমাদের শুধু শেয়ারহোল্ডারদের কথা নয়, ভাবতে হবে সমর্থকদের নিয়েও। যাদের জন্য ইউরোপিয়ান ফুটবল তৈরি হয়েছে। যাদের জন্য ইউরোপিয়ান ফুটবল আজকের এ অবস্থানে আছে।'

শেষ পর্যন্ত যদি ক্লাবগুলো নিজেদের অবস্থানে অটল থাকে তবে তাদের পরিণতির জন্য তারাই দায়ী থাকবে বলে তোপ দাগান ইনফান্তিনো, 'এটা দুই এক দশকে হয়নি, ১০০ বছরেরও বেশি সময় ধরে হয়েছে। সমর্থকদের ভালোবাসা, আবেগ এবং প্রতিশ্রুতি এই সব দিয়েই তৈরি হয়েছে। আমাদের এটি রক্ষা করা উচিত। ইউরোপিয়ান ফুটবল মডেল, টুর্নামেন্ট ও জাতীয় দলকে রক্ষার্থে ফিফা প্রেসিডেন্ট হিসেবে এটা আমার দায়িত্ব। যদি কিছু তাদের নিজস্ব পথে যেতে চায়, তবে অবশ্যই তাদের ভুগতে হবে। পরিণতির জন্য তারা নিজেরাই দায়ী থাকবে।'  

অনেক ক্লাব এখনও সুপার লিগে যাওয়া নিয়ে ভাবছে। পাশাপাশি লিগ ও চ্যাম্পিয়ন্স লিগে তাদের অবস্থান কি হবে তা নিয়েও বিবেচনা করছে। তাদেরও পরিণতির কথা মনে করিয়ে দেন ফিফা সভাপতি, 'হয় আপনি এটাতে থাকবেন, না হয় থাকবেন না। এর মধ্যবর্তী কোনো স্থান নেই।

উল্লেখ্য, রোববার আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হয় ইউরোপিয়ান সুপার লিগের। ইউরোপের শীর্ষ ১২টি দল এ লিগে যোগ দিতে যাচ্ছে। স্পেন থেকে যোগ দিয়েছে বার্সেলোনা, রিয়াল মাদ্রিদ ও অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ। ইংল্যান্ড থেকে লিভারপুল, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, ম্যানচেস্টার সিটি, চেলসি, আর্সেনাল ও টটেনহ্যাম হটস্পার্স। ইতালি থেকে রয়েছে জুভেন্টাস, ইন্টার মিলান ও এসি মিলান।

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top