রাইডু-দু প্লেসির ব্যাটে চেন্নাইর জয়ে শুরু আইপিএল | The Daily Star Bangla
১২:০০ পূর্বাহ্ন, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০ / সর্বশেষ সংশোধিত: ১২:০২ পূর্বাহ্ন, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০

রাইডু-দু প্লেসির ব্যাটে চেন্নাইর জয়ে শুরু আইপিএল

স্পোর্টস ডেস্ক

থিতু হয়েও ইনিংস টানতে পারেননি কুইন্টেন ডি কক, সৌরভ তিওয়ারিরা। মাঝারি পূঁজি নিয়ে তবু দারুণ শুরু এনেছিলেন বোলাররা। তবে আম্বাতি রাইডু আর ফাফ দু প্লেসির ব্যাটে সব কিছু ম্লান হয়ে গেছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের। আইপিএলের নতুন আসরের প্রথম ম্যাচে অনায়াসে জিতেছে চেন্নাই সুপার কিংস।

করোনাভাইরাসের কারণে দর্শকশূন্য মাঠে সংযুক্ত আরব আমিরাতে সরে এসেছিল আইপিএলের ১৩তম আসর। নতুন বাস্তবতায় আবুধাবিতে প্রথম ম্যাচে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সকে ৫ উইকেটে হারায় মহেন্দ্র সিং ধোনির দল। 

দলের জয়ে ৪৮ বলে ৭১ রানের ইনিংস খেলেন রাইডু। দু প্লেসি দলকে জিতিয়ে অপরাজিত থাকেন ৪৪ বলে ৫৫ রানে। ৪ বল আগেই শেষ হয় খেলা।

অথচ রান তাড়ায় দুঃস্বপ্নের মতো শুরু হয়েছিল চেন্নাইর। প্রথম ওভারের ট্রেন্ট বোল্টের শিকার হয়ে ফেরত যান শেন ওয়াটসন। এলবিডব্লিওর ওই আউট ঠেকাতে রিভিউও নষ্ট করেন তিনি।

আরেক ওপেনার মুরালি বিজয় করেছেন উলটো আচরণ। জেমস প্যাটিনসনের বলে রিভিউ নিলে বেঁচে যেতেন, এমন বলে আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত মেনে মাঠ ছাড়েন তিনি। ২ ওভারে শেষে ৬ রানে ২ উইকেট হারিয়ে স্কোরবোর্ডে তখন দৈন্যদশা।

এরপরই গল্পটা আম্বাতি রাইডুর। ফিল্ডিংয়ে দারুণ দুই ক্যাচ নেওয়া ফাফ দু প্লেসিকে নিয়ে খেলার নাটাই নিজের হাতে নেন তিনি। রানের চাকা ঘুরতে থাকে, উইকেট পতন বন্ধ হয়ে যায়। তৃতীয় উইকেটে দুজনে মিলে  তৃতীয় উইকেটে আনেন ১১৫ রান, তাতে রাইডুর একারই ৭১ রান।

৩৪ বলে ফিফটি পেরিয়েও আরও আগ্রাসীভাবে ছুটছিলেন রাইডু । রাইডুর আগ্রাসী মেজাজ দেখে আরেক পাশে রয়েসয়ে খেলছিলেন দু প্লেসি। রাহুল চাহারের বলে পেটাতে গিয়ে ক্যাচ দিয়ে থামেন রাইডু। এরপর খানিকটা নড়বড়ে হয়েছিল তাদের ইনিংস। কিন্তু ছয়ে নামা স্যাম কারান মাত্র ৬ বলে ১৮ রান করে কাজটা করে দেন সহজ।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে যাওয়া মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স শুরুটা পেয়েছিল ভালোই। শুরুতে আলগা বল করতে থাকা দীপক চাহার, স্যাম কারান, লুঙ্গি এনগিদির বল থেকে সহজে রান বের করছিলেন রোহিত শর্মা-কুইন্টেন ডি কক।

পঞ্চম ওভারে লেগ স্পিনার পিযুষ চাওলাকে এনে মুম্বাইর ছন্দে রাশ টানেন চেন্নাই অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। রান আটকে দেওয়ার পাশাপাশি রোহিতের গুরুত্বপূর্ণ উইকেট পেয়ে যান পিযুষ।

১০ বলে ১২ রান করা রোহিত পিযুষের বলের গতির তারতম্যে বিভ্রান্ত হয়ে ক্যাচ দেন মিড অফে। দারুণ খেলতে থাকা ডি কক শিকার কারানের। ইংলিশ বাঁহাতি পেসারের বল পুল করতে গিয়ে মিড অন ছাড়াতে পারেনি ২০ বলে ৫ চারে ৩৩ করা ডি কক।

এরপর মিডল অর্ডারে গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলেছেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান সৌরভ তিওয়ারি। সূর্যকুমার যাদবকে নিয়ে ৪২ রানের জুটি পান তিনি। এরপর হার্দিক পান্ডিয়াকে নিয়ে আরেক জুটি পাচ্ছিলেন সৌরভ। কিন্তু রবীন্দ্র জাদেজার এক ওভারে এই দুজনকে দারুণ দুই ক্যাচ বিদায় করেন ফাফ দু প্লেসি।

ঝড়ের আভাস দিয়ে শেষ করতে পারেননি কাইরন পোলার্ডও। ১৮০ ছাড়ানোর ভিত থাকলেও মুম্বাই থামে ১৬২ রানে।

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top