মালদ্বীপকে ৬ রানে গুটিয়ে দিল বাংলাদেশ | The Daily Star Bangla
০২:৪৯ অপরাহ্ন, ডিসেম্বর ০৫, ২০১৯ / সর্বশেষ সংশোধিত: ০৩:৫৭ অপরাহ্ন, ডিসেম্বর ০৫, ২০১৯

মালদ্বীপকে ৬ রানে গুটিয়ে দিল বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

মালদ্বীপকে নিয়ে এবার প্রায় সব দলই ছেলেখেলায় মেতেছে। নেপালের মেয়েদের মাত্র ১৭ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল তারা। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেও করতে পেরেছিল মাত্র ৩০ রান। আর বাংলাদেশের বিপক্ষে আরও করুণ অবস্থা তাদের। মাত্র ৬ রানেই গুটিয়ে গেছে দলটি। রিতু মনির বোলিং তোপের পাশাপাশি সালমা খাতুনের ঘূর্ণি মায়াজালে পড়ে দলটি। ফলে ২৪৯ রানের বিশাল জয় পেয়েছে বাঘিনীরা।

শুধু তাই নয়, তাদের বিপক্ষে রান বন্যার খেলাতেও মেতেছিল দলগুলো। শ্রীলঙ্কা তো করেছিল ২৭৯ রান। তাই তাদের বিপক্ষে খুব ভালো কিছু করবেন এমনটা প্রত্যাশিতই ছিল বাংলাদেশের মেয়েদের কাছে। অনেকটা পূরণও হয়েছে সে আশার। ২৫৫ রানের বিশাল সংগ্রহই করে তারা। যা বাংলাদেশের এ সংস্করণের সর্বোচ্চ রানও বটে। এর আগে সর্বোচ্চ স্কোর ছিল ১৫২ রান।

রান বন্যায় মেতে দুই ব্যাটার নিগার সুলতানা ও ফারজানা হক তুলে নিয়েছেন সেঞ্চুরি। তৃতীয় উইকেটে এ দুই ব্যাটেরের করা ২৩৬ রানের জুটিও নতুন রেকর্ডও। কারণ এতো বড় জুটি হয়নি বাংলাদেশের মেয়েদের ক্রিকেটে। তবে কিছুটা আক্ষেপ করতেই পারেন তারা। কারণ ম্যাচটি আন্তর্জাতিক স্বীকৃত নয়। অন্যথায় জুটির নতুন রেকর্ডের পাশাপাশি দেশের প্রথম সেঞ্চুরিয়ান হওয়ার খেতাবটা পেতে পারতেন নিগার। টি-টোয়েন্টি তো দূরের কথা, ওয়ানডে ক্রিকেটেও কোনো সেঞ্চুরি নেই কোন বাংলাদেশী নারী ক্রিকেটারদের।

নেপালে এদিন টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং করতে নামে বাংলাদেশ। তবে শুরুটা ছিল বিবর্ণ। দলীয় ১০ রানেই ওপেনার শামিমা সুলতানা রানহয়ে সাজঘরে ফেরেন। আরেক ওপেনার সানজিদা ইসলামও টিকতে পারেননি বেশিক্ষণ। স্কোরবোর্ডে আর ৯ রান যোগ হতেই ফিরে আসেন তিনি। এরপর চাপে পড়া বাংলাদেশের হাল ধরেন নিগার ও ফারজানা।

দুই ব্যাটসম্যানই দায়িত্ব নিয়ে প্রাথমিক চাপ সামলে আগ্রাসী ঢঙে ব্যাট করতে থাকেন। দুইজনই পৌঁছান তিন অঙ্কের ম্যাজিক ফিগারে। মাত্র ৬৫ বলে ১৪টি চার ও ৩টি ছক্কার সাহায্যে ১১৩ রান করে অপরাজিত থাকেন নিগার। ফারজানা ছিলেন আরও আগ্রাসী। হার না মানা ১১০ রান করতে মাত্র ৫৩টি বল খেলেছেন তিনি। যদিও কোন ছক্কা মারেন নি তিনি। তবে ২০টি চারের সাহায্যে নিজের ইনিংস সাজিয়েছেন এ ব্যাটার।

বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই বাংলাদেশী বোলারদের তোপে পড়ে মালদ্বীপ। সেই সঙ্গে ফিল্ডিংও দারুণ। দুই ব্যাটারকে রানআউট করেছেন তারা। দলের সর্বোচ্চ রানের স্কোরটি মাত্র ২। আসে শাম্মা আলির ব্যাট থেকে এছাড়া কোন ব্যাটারই একাধিক রান করতে পারেননি। আট জন তো রানের খাতাই খুলতে পারেননি। কিনাথ ইসমাইল ও সাজা ফাতিমাহ ব্যাট থেকে আসে ১ রান। বাকী দুই রান আসে অতিরিক্তর খাতা থেকে। মাত্র ৬ রানে গুটিয়ে গেলেও ১২.১ ওভার ব্যাট করে মালদ্বীপ।

বাংলাদেশের পক্ষে মাত্র ৪ ওভার বল করে ১ রান খরচ করে ৩টি উইকেট নিয়েছেন রিতু। ২ রানের বিনিময়ে সালমার শিকারও ৩টি। এছাড়া ১টি করে উইকেট নেন রাবেয়া খান ও নাহিদা আক্তার।

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top