ব্যাপক পরিবর্তনের ব্যাখ্যা দিলেন প্রধান নির্বাচক | The Daily Star Bangla
০৩:১৬ অপরাহ্ন, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯ / সর্বশেষ সংশোধিত: ০৪:১৩ অপরাহ্ন, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯

ব্যাপক পরিবর্তনের ব্যাখ্যা দিলেন প্রধান নির্বাচক

ক্রীড়া প্রতিবেদক

ত্রিদেশীয় সিরিজে প্রথম দুই টি-টোয়েন্টির পর বাংলাদেশ দলে ব্যাপক পরিবর্তন আনা হয়েছে। বাদ পড়েছেন চারজন। যাদের তিনজনই স্কোয়াডে থেকে খেলার সুযোগ পাননি। নতুন করে দলে ঢুকেছেন পাঁচজন। এর মধ্যে টি-টোয়েন্টিতে একেবারেই নতুন মুখ তিনজন। একটি টুর্নামেন্টের মাঝপথে কেন এত বেশি পরিবর্তন, দ্য ডেইলি স্টারকে তার কারণ ব্যাখ্যা করেছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু।

ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের সঙ্গে হারতে হারতে জেতার পর দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশ পাত্তা পায়নি আফগানিস্তানের কাছে। দলের এমন বেহাল অবস্থায় গেল এক সপ্তাহে এই নিয়ে তৃতীয়বার স্কোয়াডে বদল আনলেন নির্বাচকরা।

লিগ পর্বের বাকি দুই ম্যাচের আগে বাদ দেওয়া হয়েছে ছন্দ হারানো সৌম্য সরকারকে। তার সঙ্গে না খেলেই বাদ পড়েছেন তিনজন। চমক হিসেবেই টি-টোয়েন্টি দলে আসা পেসার ইয়াসিন আরাফাত বাদ পড়েছেন সাইড স্ট্রেনের চোট থাকায়। তার চোটে দ্বিতীয় ম্যাচের আগে স্কোয়াডে নেওয়া হয়েছিল পেসার আবু হায়দার রনিকে। খেলার সুযোগ না পেলেও পরের দুই ম্যাচে জায়গা হয়নি তার। অফ স্পিনার মেহেদী হাসান শুরু থেকে দলে থেকেও ম্যাচ না খেলে কাটা পড়েছেন।

সৌম্যর জায়গায় দলে প্রথমবারের মতো এসেছেন ওপেনার মোহাম্মদ নাঈম শেখ। সবচেয়ে বড় চমক হিসেবেই দলে নেওয়া হয়েছে লেগ স্পিনিং অলরাউন্ডার আমিনুল ইসলাম বিপ্লবকে। দীর্ঘ পরিসরের ক্রিকেটের জন্য বেশি বিবেচিত নাজমুল হোসেন শান্তও টি-টোয়েন্টি দলে এসেছেন চমক হিসেবে। এছাড়াও দলে ফিরেছেন পেসার রুবেল হোসেন ও শফিউল ইসলাম। 

কেন এত পরিবর্তন জানতে চাইলে প্রধান নির্বাচক দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘নতুন কোচ আরও কয়েকজন ক্রিকেটারকে দেখতে চেয়েছেন। সেজন্যই স্কোয়াডে এতগুলো বদল করা হয়েছে।’

মিনহাজুল জানান, রনি, মেহেদী, ইয়াসিনদের দলে না থাকার কারণ অবশ্য ভিন্ন। এইচপি দলে থাকায় রাখা হয়নি তাদের, ‘কাল (মঙ্গলবার) তারা এইচপি দলের হয়ে ভারত সফরে যাচ্ছে, তাই তাদের রাখা হয়নি। যেহেতু টি-টোয়েন্টি খেলা, কাজেই বড় স্কোয়াড করার দরকার নেই।’

এবার ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে সৌম্য করেন ৪ ও ০ রান। ৪৩ টি-টোয়েন্টির ক্যারিয়ারেও থিতু হতে পারেননি, করেছেন মোটে একটা ফিফটি। ফর্মের কারণেই যে তিনি বাদ গেছেন, নিশ্চিত করেছেন প্রধান নির্বাচকও। তার জায়গায় দলে আসা নাঈম বিবেচিত হয়েছেন সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন পর্যায়ে রান পেয়ে। আফগানিস্তান ‘এ’ দলের বিপক্ষে একদিনের ম্যাচে সেঞ্চুরি পেয়েছিলেন তিনি। তার আগে গত ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের হয়ে ১৬ ম্যাচে করেন ৮০৭ রান।

অনেক দিন থেকে পারফর্ম করায় নাঈমের দলে আসা বোধগম্য। সে তুলনায় শান্তর টি-টোয়েন্টি দলে থাকা অনেকটা চমকের। এর আগে জাতীয় দলের হয়ে দুটি টেস্ট ও তিনটি ওয়ানডে খেলা শান্ত ঘরোয়া টি-টোয়েন্টির আসর বিপিএলেও সেভাবে কখনো নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। বরং টি-টোয়েন্টিতে তার ব্যাটিংয়ের ধরণ হয়েছে প্রশ্নবিদ্ধ। তবে প্রধান নির্বাচক জানালেন, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সামনে রেখে অনেককেই নতুন করে দেখতে চাইছেন প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো।

দলে সবচেয়ে বড় চমক আমিনুল। বয়সভিত্তিক দলে তার পরিচয় ছিল ব্যাটসম্যান। সবশেষ ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে বিকেএসপির হয়ে নিয়মিত রান করেই নজর কেড়েছিলেন তিনি। করতেন অনিয়মিত লেগ স্পিনও, সেটাই নাকি মনে ধরেছিল এইচপির কোচ সাইমন হেলমটের।

সবশেষ আফগানিস্তান ‘এ’ দল ও শ্রীলঙ্কা ইমার্জিং দলের বিপক্ষে লেগ স্পিনার হিসেবেই খেলানো হয়েছে আমিনুলকে। একটা ধারাবাহিক প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবেই তাকে দলে নেওয়া হয়েছে বলে জানান মিনহাজুল, ‘ওকে লেগ স্পিনার হিসেবেই দলে নেওয়া হয়েছে। বেশ কয়েকদিন থেকেই এইচপিতে ওকে নার্সিং (পরিচর্যা) করা হচ্ছিল।’

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top