বর্ণাঢ্য গোলাপি উৎসবে বাংলাদেশের সামনে কঠিন চ্যালেঞ্জ | The Daily Star Bangla
০১:৩৯ পূর্বাহ্ন, নভেম্বর ২২, ২০১৯ / সর্বশেষ সংশোধিত: ০১:৪৩ পূর্বাহ্ন, নভেম্বর ২২, ২০১৯

বর্ণাঢ্য গোলাপি উৎসবে বাংলাদেশের সামনে কঠিন চ্যালেঞ্জ

ক্রীড়া প্রতিবেদক, কলকাতা থেকে

অনুশীলন সেরে ভারত মাঠ ছেড়ে যায় দুপুরে, সন্ধ্যার পর ফিরে যায় বাংলাদেশ দলও। কিন্তু দুই দলের ড্রেসিং রুমের সামনেই প্রচণ্ড ভিড়। ঘসা মাঝা চলছে, ফুলের তোড়া লাগানো হচ্ছে তো আরেকদিকে কার্ড বিতরণ চলছে। বিয়ে বাড়ির আগের রাতের মতো হুলস্থূল পরিস্থিতি। ভারত-বাংলাদেশের দ্বিতীয় টেস্ট যেন বড় কোন টুর্নামেন্টের ফাইনাল কিংবা ক্রিকেটের গণ্ডি ছাপিয়ে আরও বড় কোন উপলক্ষ।

রাতে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি দেখতে ভিড় ঠেলে সৌরভ গাঙুলি ঢুকলেন মাঠে। তার পিছে বিশাল বহর। মাঠের মধ্যে ডিসপ্লে দলের রিহার্সাল চলছে। একে ওটা, তাকে ওটা, নানানজনকে নানা দায়িত্ব দিয়ে চলল ভারতীয় বোর্ড সভাপতির তীব্র ব্যস্ততা। উপমহাদেশে গোলাপি বলের টেস্ট হবে। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী আসছেন। দুই দেশের বড় বড় তারকারা থাকছেন। খেলার আলাপ ছাপিয়ে ইডেন হয়ে উঠেছে গোলাপি বরণে। সৌরভের ব্যস্ততা থাকা স্বাভাবিক।


ইডেন ছাড়িয়ে গোলাপি বলের টেস্টের হাইপ ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে শহরময়। এতসবের মধ্যে ক্রিকেটটা যে একটু চাপা পড়ে যাচ্ছে অস্বীকার করলেন না বাংলাদেশ অধিনায়ক মুমিনুল হক। ভিআইপিরা থাকবেন, নানান আয়োজন থাকছে। তবে ক্রিকেটাররা মনোযোগ ক্রিকেটেই রাখছেন জানালেন মুমিনুল, ‘বাইরে কি হচ্ছে না হচ্ছে আমার মনে হয় না, পেশাদার খেলোয়াড় হিসেবে এটা আমাদের প্রভাবিত করবে। এই চাপ কোনোভাবেই আসা উচিত না। যে যার কাজ ঠিক মতো করছি। চাপ চলে আসার কোনো সুযোগ নাই।’

ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলিও সব আয়োজন নিয়ে রোমাঞ্চিত  দারুণ উপলক্ষ। এই টেস্ট নিয়ে আমরা ভীষণ রোমাঞ্চিত।  আমাদের জন্য এটা চ্যালেঞ্জ।’

চ্যালেঞ্জ দুই দলেরই। এবং তা বেশ কয়েকধরণের। একে তো গোলাপি বল আর দিবারাত্রির প্রথম অভিজ্ঞতা, তারমধ্যে সিরিজে পিছিয়ে থাকায় বেশ বিপাকে বাংলাদেশ। ইন্দোরে আগের টেস্টেই নড়বড়ে ব্যাটিং উপহার দেওয়া বাংলাদেশ গোলাপি বলে পড়তে যাচ্ছে আরও বড় পরীক্ষায়।

এই বলে পেসাররা পাবেন স্যুয়িং আর মুভমেন্ট। গোধূলি বেলায় আলো-আধারিতে ব্যাটসম্যান বোলার সবারই বল দেখা হয়ে যেতে পারে কঠিন। বাংলাদেশ অধিনায়ক বলছেন ফ্লাড লাইটের আলোতেও শক্ত চ্যালেঞ্জ পোহাতে হবে তাদের।

চ্যালেঞ্জ দেখছে ভারত। নামেভারে যতই বড় হোক না কেন। নতুন যেকোনো কিছুই আসলে ঝুঁকিপূর্ণ। তবে র‍্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বর দল সব দিক থেকেই আছে এগিয়ে।

দলের খবর

চোটের কারণে সাইফ হাসান ছিটকে যাওয়ায় দ্বিতীয় টেস্টেও বাংলাদেশের টপ অর্ডার থাকছে অপরিবর্তিত। বদল আসতে পারে বোলিং আক্রমণে। একজন স্পিনার কমিয়ে মোস্তাফিজুর রহমানের ফেরা নিশ্চিত। আগের টেস্টে নিষ্প্রভ থাকা ইবাদত হোসেনের জায়গায় ফিরতে পারেন আল-আমিন হোসেন। অর্থাৎ তিন পেসার নিয়ে খেলবে বাংলাদেশ।

ভারতীয় দলেও পাওয়া যাচ্ছে বদলের আভাস। গোলাপি বলে সফলতার বিবেচনায় রিষ্ট স্পিনার কুলদীপ যাদবের একাদশে থাকার জোর সম্ভাবনা আছে। ফর্মের তুঙ্গে থাকা তিন পেসার আর কুলদীপসহ দুই স্পিনারের স্পিন আক্রমণ হয়ে উঠতে পারে বিধ্বংসী।

শুক্রবার কলকাতার স্থানীয় সময় দুপুর ১টায় ইডেনে শুরু হবে প্রথম দিনের খেলা। প্রথম সেশনের খেলা শেষ হবে বেলা তিনটায়। দ্বিতীয় সেশন শুরু হবে পৌনে চারটায়। পৌঁছে ছয়টায় এই সেশন শেষ হবার পর শেষ সেশনের খেলা হবে সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত।

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top