দিল্লিতে নিঃশ্বাস নেওয়াই কঠিন! | The Daily Star Bangla
০৯:৫৮ অপরাহ্ন, নভেম্বর ০১, ২০১৯ / সর্বশেষ সংশোধিত: ০৭:০৩ অপরাহ্ন, নভেম্বর ০২, ২০১৯

দিল্লিতে নিঃশ্বাস নেওয়াই কঠিন!

দিল্লির কাছাকাছি চলে আসায় অবতরণের ঘোষণা আসতে জানালা দিয়ে নিচে তাকিয়ে কিছুই দেখা গেল না। এমনিতে যেকোনো বিমানবন্দরের কাছাকাছি চলে এলে নিচের জনপদ স্পষ্ট দেখা যায়। এতটাই কি কুয়াশা!  বিমান অবতরণের পরও বাইরের ছবি ঘোলাটে। শীত এখনো আসেনি, তার মধ্যেই এই অবস্থা! ভুল ভাঙল বিমানবন্দর থেকে বের হতেই। আসলে শীতের কুয়াশা নয়। দিল্লিকে আচ্ছন্ন করে রেখেছে দূষিত বায়ু, যাতে নিঃশ্বাস নেওয়াই হয়ে পড়েছে দুষ্কর!

ভারতের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচ খেলতে দুদিন আগেই ভারতের রাজধানীতে এসেছে বাংলাদেশ দল। এসেই নাকি পড়েছে বিরূপএক পরিস্থিতিতে। ক্রিকেটারদের অনুশীলন করতে হচ্ছে মাস্ক পরে। বাংলাদেশ থেকে এই খবর শুনেই এখানে আসা হয়েছে। আসার পর বোঝা গেল বাস্তব পরিস্থিতি আসলেই কতটা নাজুক। এখানে সুস্থভাবে হাঁটাচলা করতে মাস্কের বিকল্পও নেই।

কারো যদি শ্বাসকষ্টের সমস্যা থাকে তাহলে এই মুহূর্তে দিল্লি তার জন্য রীতিমতো গ্যাস চেম্বার। এমনিতেই শীতের এই সময়টায় দিল্লিতে বায়ু দূষণ প্রকট আকার ধারণ করে। সেটা আরও অসহ্য রূপ নিয়েছে দীপাবলিতে (দিওয়ালী) ফুটানো লাখ লাখ পটকার কারণে। বিমানবন্দর থেকে হোটেলে নিয়ে যাওয়া নেপালি গাড়িচালক বলছিলেন, ‘আপনারা ভুল সময়ে এসে পড়েছেন, দিওয়ালীর কারণে এই সময়টায় স্থানীয়দেরই নাভিশ্বাস ওঠে।’

ভুল সময়ে আসলে না এসে উপায় নেই। দিল্লিতে খেলাই যে পড়েছে ‘ভুল সময়ে’। শীতের আগমনী আর দিওয়ালীর ঝাপটায় দিল্লিতে এই সময়ে ক্রিকেট ম্যাচ আয়োজন সচেতনভাবে এড়িয়ে যাওয়া হচ্ছিল। সে সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসায় এবার খেলা পড়েছে এই সময়েই।


শুক্রবারও (১ নভেম্বর) দিনের বেলা অনুশীলন করেছে বাংলাদেশ দল। কোচ রাসেল ডমিঙ্গো নিজেও মাস্ক পরে চালিয়েছেন অনুশীলন। পরে সংবাদ মাধ্যমের সামনে হাজির হয়ে জানালেন, দিল্লির বর্তমান পরিবেশ ক্রিকেট ম্যাচের জন্য একেবারেই উপযুক্ত নয়, ‘এমনিতে খুব একটা গরম নেই। বাতাসও খুব একটা নেই। কিন্তু ধোঁয়াশা ভোগাবে দুই দলকেই। খুব একটা সন্তুষ্ট নই। অবশ্যই এই কন্ডিশন খেলার জন্য আদর্শ নয়।’

দিল্লিতে একবার দূষণের দাপটে টেস্ট ম্যাচের সময় ভারত ও শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটারদের বমি করার ঘটনাও আছে। পরিস্থিতি একইরকম হলেও খেলাটা টেস্ট নয় বলেই কিছুটা স্বস্তি বাংলাদেশ কোচের, ‘এমন পরিবেশ কেউ চাইবে না। তবে এটা নিয়ে আমাদের কিছু করার নেই। আমরা যতটা সম্ভব প্রস্তুতি নেওয়ার চেষ্টা করছি। চোখ জ্বালা করছে, গলায় সমস্যা হচ্ছে। তবে আমরা অবশ্য ৬ থেকে ৭ ঘণ্টা খেলব না। ৩ ঘণ্টা করে অনুশীলন করছি, ম্যাচ খেলব তিন-চার ঘণ্টা।’

এমনিতে ঢাকা শহরও দূষিত। কিন্তু দিল্লির দূষণ একেবারেই আলাদা। বাতাসের সঙ্গে মিশে থাকা ধোঁয়ার কুণ্ডলী যেকোনো সুস্থ মানুষকেই অস্বস্তি দেবে। পূর্বাভাস বলছে, খেলার মাঝেও প্রভাব ফেলতে পারে দিল্লির দূষিত বায়ু। কিন্তু শেষ মুহূর্ত বলে ভেন্যু বদলেরও কোনো সম্ভাবনা নেই। বিক্রি হয়ে গেছে টিকেট। বিসিসিআই’র নতুন সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলীও জানিয়ে দিয়েছেন নিজের অসহায়ত্ব। তাই অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামে আগামী রোববার ভালোয় ভালোয় খেলাটা শেষ হওয়ারই প্রত্যাশা এখন সবার।

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top