পুতিনবিরোধী বিক্ষোভ: মস্কোয় মেট্রো স্টেশন বন্ধ, যান চলাচল সীমিত | The Daily Star Bangla
০২:২৩ অপরাহ্ন, জানুয়ারি ৩১, ২০২১ / সর্বশেষ সংশোধিত: ০২:২৭ অপরাহ্ন, জানুয়ারি ৩১, ২০২১

পুতিনবিরোধী বিক্ষোভ: মস্কোয় মেট্রো স্টেশন বন্ধ, যান চলাচল সীমিত

স্টার অনলাইন ডেস্ক

পুতিন-বিরোধী নেতা অ্যালেক্সি নাভালনির মুক্তির দাবিতে রাশিয়াজুড়ে চলছে বিক্ষোভ। গত সপ্তাহে সমাবেশ থেকে চার হাজারের বেশি বিক্ষোভকারীকে আটক করা হয়েছে।

আজ রোববার বিবিসি’র এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আজকের বিক্ষোভ সমাবেশ আটকাতে সব রকমের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে রুশ কর্তৃপক্ষ। রাজধানী শহর মস্কোর সাতটি মেট্রো স্টেশন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও, শহরে লোকজনের চলাচল সীমিত করা হয়েছে উল্লেখ করে সংবাদ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অনেক রেস্তোঁরা ও দোকান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যান চলাচলও সীমিত রাখার নির্দেশ এসেছে বলেও প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

আজ বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, সকালে তীব্র শীতের মধ্যে সাইবেরিয়া ও ফার ইস্ট অঞ্চলে নাভালনির মুক্তির দাবিতে মানুষ রাস্তায় নেমে এসেছে।

বিবিসি’র প্রতিবেদন মতে, গতকাল শনিবার নাভালনির মুক্তির দাবিতে রাশিয়ায় হাজারো মানুষ বিক্ষোভ করেছিলেন।

এতে আরও বলা হয়েছে, আজকের সমাবেশ নিয়ে নতুন করে পুলিশি সতর্কতা সত্ত্বেও পরিকল্পনা অনুযায়ী বিক্ষোভ-সমাবেশ হবে ধারণা করা হচ্ছে। তীব্র শীতের মধ্যেও দেশটির বিভিন্ন অঞ্চলে প্রতিবাদ-সমাবেশের সম্ভাবনা আছে।

এ মুহূর্তে মস্কোর বন্দিশিবিরগুলোতে জায়গা খালি নেই উল্লেখ করে প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, নাভালনি সমর্থকদের জন্য কারাগারে জায়গা খুঁজে পেতে হিমশিম খাচ্ছে পুলিশ।

এতে আরও বলা হয়েছে, নাভালনির ঘনিষ্ঠ সহযোগীদের গত সপ্তাহ থেকে আটক করা শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যেই তার ভাই ও অ্যাক্টিভিস্ট মারিয়া অ্যালোওখিনাসহ অন্যদের গৃহবন্দি করা হয়েছে।

মানবাধিকার-বিষয়ক একটি রাশিয়ান ওয়েবসাইটের প্রধান সম্পাদক সের্গেই স্মারনভকেও শনিবার তার বাড়ির বাইরে থেকে গ্রেপ্তার করা হয় জানিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত সপ্তাহের বিক্ষোভে তিনি অংশ নিয়েছিলেন। তার আটক হওয়ার সংবাদে দেশটির বেশ কয়েকজন সাংবাদিক এর সমালোচনা ও নিন্দা করেছেন।

সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কট্টর সমালোচক হিসেবে পরিচিত অ্যালেক্সি নাভালনি। বিষপ্রয়োগে অসুস্থ হওয়ার পাঁচ মাস পর গত ১৭ জানুয়ারি রাশিয়ায় ফেরার পরপরই তাকে গ্রেপ্তার করে ৩০ দিনের আটকাদেশ দেয় রুশ কর্তৃপক্ষ। ২০১৪ সালের একটি অর্থ আত্মসাৎ মামলায় স্থগিত দণ্ডের প্যারোলের শর্ত ভাঙার অভিযোগে তাকে আটক করা হয়।

নাভালনি ও তার সহযোগীদের অভিযোগ, পুতিনের নির্দেশেই তাকে বিষ প্রয়োগ করা হয়েছিল। তবে নাভালনিকে বিষ প্রয়োগের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে ক্রেমলিন।

অ্যালেক্সি নাভালনি তার বিরুদ্ধে আদালতের ৩০ দিনের আটকাদেশকে ‘পুরোপুরি অবৈধ’ দাবি করে এর নিন্দা জানিয়েছেন।

নাভালনির দল বলছে রাশিয়ার ভ্লাদিভোস্টক শহরে গত এক দশকেরও বেশি সময়ের মধ্যে গত শনিবারের বিক্ষোভটিই ছিল সরকারবিরোধী সবচেয়ে বড় বিক্ষোভ সমাবেশ।

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top