বিশ্বকাপের সেরা খেলোয়াড়: দৌড়ে আছেন সাকিবও | The Daily Star Bangla
০১:০১ অপরাহ্ন, জুলাই ১৪, ২০১৯ / সর্বশেষ সংশোধিত: ০১:১৭ অপরাহ্ন, জুলাই ১৪, ২০১৯

বিশ্বকাপের সেরা খেলোয়াড়: দৌড়ে আছেন সাকিবও

স্পোর্টস ডেস্ক

লর্ডসে ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার ফাইনাল শেষে ঘোষণা করা হবে ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের সেরা খেলোয়াড়ের নাম। চোখ ধাঁধানো পারফরম্যান্স দেখিয়ে 'ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্ট' হওয়ার দৌড়ে যারা এগিয়ে আছেন, তাদের মধ্যে রয়েছেন বাংলাদেশের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানও।

বিশ্বকাপে ব্যাট হাতে নজর কেড়েছেন ভারতের রোহিত শর্মা, অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড ওয়ার্নার, ইংল্যান্ডের জো রুট, নিউজিল্যান্ডের কেন উইলিয়ামসনরা। বল হাতে আলো ছড়িয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার মিচেল স্টার্ক, ইংল্যান্ডের জোফরা আর্চার, নিউজিল্যান্ডের লোকি ফার্গুসনরা। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব দুই ক্ষেত্রেই বিস্ময়করভাবে সফল। ইংল্যান্ডের অলরাউন্ডার বেন স্টোকসও দুর্দান্ত একটি আসর কাটিয়েছেন তবে সাকিবের সঙ্গে তার দূরত্বের ব্যবধান বেশ বড়।

বাকিদের থেকে সাকিব একটা জায়গায় পিছিয়ে- দলগত সাফল্যে। বাংলাদেশ লিগ পর্বে অষ্টম হয়ে আসর শেষ করেছে। সাকিব বাদে বিশ্বকাপের সম্ভাব্য সেরা খেলোয়াড় হিসেবে যাদের নাম উচ্চারিত হচ্ছে, তারা সবাই অন্তত সেমিফাইনালে খেলেছেন। কয়েকজন মাতাবেন ফাইনালও।

সাকিব আল হাসান:

এবারের বিশ্বকাপে নিজের ক্রিকেট ক্যারিয়ারের সেরা ছন্দে ছিলেন সাকিব। ৮ ম্যাচে করেছেন ৬০৬ রান, নিয়েছেন ১১ উইকেট। সেঞ্চুরি করেছেন দুটি, হাফসেঞ্চুরি পাঁচটি। এক আসরে সাতটি পঞ্চাশোর্ধ্ব ইনিংস খেলে ভারতীয় কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকারের রেকর্ড ছুঁয়ে ফেলেছেন তিনি। একটি ইনিংসেই ফিফটি ছুঁতে পারেননি সাকিব। সে ম্যাচেও করেছিলেন ৪১ রান।

এক বিশ্বকাপে ৪০০ রান ও ১০ উইকেটের ডাবল ছিল না কোনো ক্রিকেটারের। সাকিব সে রেকর্ড তো গড়েছেনই, ছয়শো রানের সীমা ছাড়িয়ে নিজেকে নিয়ে গেছেন আরও উঁচুতে।

বাংলাদেশ যে তিনটি ম্যাচ এবার জিতেছিল, তার প্রতিটিতেই ম্যাচ সেরা হয়েছিলেন সাকিব। তার পারফরম্যান্সেই সেমিফাইনালে খেলার স্বপ্ন দেখছিল বাংলাদেশ। তবে ভারতের কাছে হারে সে আশার মৃত্যু ঘটে।

রোহিত শর্মা:

এখন পর্যন্ত চলতি বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক রোহিত। ভারতীয় ওপেনার ৯ ইনিংসে ৮১ গড়ে করেছেন ৬৪৮ রান। অবিশ্বাস্য ধারাবাহিকতায় সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন পাঁচটি, হাফসেঞ্চুরি একটি।

রোহিত ভেঙে দিয়েছেন গেল আসরে গড়া কুমার সাঙ্গাকারার চার সেঞ্চুরির রেকর্ড। বিশ্বকাপের এক আসরে সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরির রেকর্ড জ্বলজ্বল করছে তার নামের পাশে।

সেমিফাইনালটা অবশ্য রোহিতের মনের মতো হয়নি। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আউট হয়েছিলেন ১ রান করে। তার ব্যর্থতার দিনে ভারতও পায়নি জয়। এবার মূলত টপ অর্ডারের ব্যাটসম্যানদের কাছ থেকেই রান পেয়েছে দলটি। আর তাদের নেতৃত্বে ছিলেন রোহিত।

মিচেল স্টার্ক:

সেমিফাইনালে অসিরা বাদ পড়ায় ডেভিড ওয়ার্নার (১০ ইনিংসে ৬৪৭ রান) পিছিয়ে গেলেও, তার সতীর্থ পেসার স্টার্ক ভালোভাবে টিকে আছেন দৌড়ে। ১০ ম্যাচে ১৮.৫৯ গড়ে ২৭ উইকেট নিয়েছেন তিনি। চার ও পাঁচ উইকেট নিয়েছেন দুবার করে।

বিশ্বকাপের এক আসরে সবচেয়ে বেশি উইকেট নেওয়ার রেকর্ডে ভাগ বসিয়েছেন বাঁহাতি স্টার্ক। স্পর্শ করেছেন পূর্বসূরি কিংবদন্তি পেসার গ্লেন ম্যাকগ্রাকে।

গেলবার 'ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্ট পুরস্কার' উঠেছিল স্টার্কের হাতেই। সেবার অস্ট্রেলিয়াও হয়েছিল চ্যাম্পিয়ন। নিউজিল্যান্ডের ট্রেন্ট বোল্টের সঙ্গে যৌথভাবে আসরের সর্বোচ্চ ২২ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি।

জোফরা আর্চার:

ব্যাটিং শক্তি নির্ভর ইংল্যান্ডের বোলিং আক্রমণের মূল অস্ত্র জোফরা আর্চার। গতির ঝড় তোলার সঙ্গে সঙ্গে উইকেট নেওয়ার এবং ক্রমাগত ডট দেওয়ার অদ্ভুত দক্ষতার মিশ্রণ থাকায়, বিশ্বকাপে প্রথমবার খেলতে নেমেই নজর কেড়েছেন এই পেসার।

১০ ম্যাচে ২২.০৫ গড়ে আর্চারের উইকেটসংখ্যা ১৯টি। কোনো ম্যাচে চার বা পাঁচ উইকেট নিতে পারেননি ঠিকই, কিন্তু টানা কার্যকরভাবে নিয়ন্ত্রিত বোলিং করে গেছেন।

আর্চারের ওভারপ্রতি রান দেওয়ার গড় মাত্র ৪.৬১, যেখানে স্টার্কের ৫.৪৩ আর সাকিবের ৫.৩৯। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সেমিতে ১০ ওভারের কোটা পূরণ করে মাত্র ৩২ রানে ২ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। যার মধ্যে ৩৮টিই ছিল ডট বল।

কেন উইলিয়ামসন:

বর্তমানে রান সংগ্রহকারীদের তালিকায় পাঁচ নম্বরে আছেন কিউই দলনেতা উইলিয়ামসন। ৮ ইনিংসে ৫৪৮ রান করেছেন তিনি। বিশ্বকাপ মাতানো ব্যাটসম্যানদের মধ্যে তার গড়ই সবচেয়ে বেশি, ৯১.৩৩।

উইলিয়ামসন দুটি করে সেঞ্চুরি ও হাফসেঞ্চুরি করেছেন। তার প্রায় প্রতিটি ইনিংসই দলকে বিপদ থেকে উদ্ধার করেছে। চলতি আসরের প্রথম ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের উদ্বোধনী জুটি অবিচ্ছিন্ন ১৩৭ রান তোলার পর প্রতি ম্যাচেই ব্যর্থ হয়েছে। ফলে ইনিংসের শুরু থেকেই হাল ধরতে হয়েছে উইলিয়ামসনকে।

সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কারটা হাতে তোলার ক্ষেত্রে উইলিয়ামসনকে বাড়তি সুবিধা দেবে তার নেতৃত্বগুণ। ব্যাট হাতে নিজের কাজটা করার পাশাপাশি দলকে সফলভাবে এগিয়ে নিচ্ছেন তিনি। বিশেষ করে তার বোলিং পরিবর্তনের সিদ্ধান্তগুলো বেশ বাহবা পেয়েছে।

আরও থাকছেন যারা:

এই পাঁচজনের সঙ্গে সঙ্গে ১০ ইনিংসে ৬৮.৬২ গড়ে ৫৪৯ রান করা রুট, ৯ ইনিংসে ৫৪.৪২ গড়ে ৩৮১ রান করা ও ৩২.২৮ গড়ে ৭ উইকেট নেওয়া স্টোকস ও ৮ ইনিংসে ১৯.৯৪ গড়ে ১৮ উইকেট শিকার করা ফার্গুসনও সম্ভাব্যদের তালিকায় আছেন। ফাইনালে ঝলক দেখিয়ে বাজিমাত তো তারাও করে দিতে পারেন!

Stay updated on the go with The Daily Star Android & iOS News App. Click here to download it for your device.

Grameenphone and Robi:
Type START <space> BR and send SMS it to 2222

Banglalink:
Type START <space> BR and send SMS it to 2225

পাঠকের মন্তব্য

Top